উল্টা পাল্টা অভিযোগ পেলেই বের করে দেয়া হবে: চেয়ারম্যান চন্দন শীল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ার‌ম্যান বাবু চন্দন শীল বলেছেন, অনেকে আমাকে জিজ্ঞেস করে, আপনি এতো সাহস পান কোথা থেকে; সাহস পাই একমাত্র কারন আমার নেত্রী শেখ হাসিনা। সাহস পাই কারণ, শামীম ওসমানের মতো শিংহ পুরুষ আমার বন্ধু। একটা মেসেজ দিতে চাই, যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সাচ্চা সৈনিকেরা সময় মতো এক মঞ্চে চলে আসবে। আর এক হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্য বাস্তবায়নও করবে।
রোববার (২৭ নভেম্বর) নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের আনুষ্ঠানিক দায়িত্বভার গ্রহণের পর তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান।

এসময় চন্দনশীল বলেন, আপনারা সব সময় আমার পাশে ছিলেন, তাই সকলের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। আমি সব সময় এক থাকতে চাই, লোভে পরে যাতে বিপথে চলে না যাই। সততা নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে কাজ করতে হবে। যদি কোন উল্টা পাল্টা অভিযোগ পাই, তাহলে সাথে সাথে তাকে বের করে দেয়া হবে। আমরা নেত্রীকে কথা দিতে চাই, নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের জন্মস্থান; এখানে আপনার নির্দেশ আমরা অক্ষরে অক্ষরে পালন করবো।

তিনি আরও বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স দেখাবো। আপনাদের পরামর্শ নিয়ে আমি কাজ করবো। জেলা পরিষদ সকলের জন্য সর্বদা উন্মুক্ত।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ, সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এড. শামসুল ইসলাম ভূঁইয়া, রূপগঞ্জ উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান শাজাহান ভূইয়া, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, আড়াইহাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুজাহিদুর রহমান হেলো সরকার, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. নাজিম উদ্দিন আহমেদ।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম. শওকত আলী, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ্ নিজাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল আলী, নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু প্রমুখ।