‘এক শ্রেণী সংসদ সদস্যদের ছত্রছায়ায় জমি আত্মসাত করেছ’

লা্‌ইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে রেলওয়ের অব্যবহৃত জমি আত্মসাতের বিরুদ্ধে শহরে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করেছে ভূমি রক্ষা সম্মিলিত নাগরিক পরিষদ। শনিবার (১১ নভেম্বর্) বিকেলে চাষাঢ়া শহীদ মিনারে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

পরিষদের সভাপতি রফিউর রাব্বি বলেন, ১০ বছর আগে তথা কথিত রেলওয়ের শ্রমিক কল্যাণ ট্রাস্টের নামে জমি আত্মসাত করতে চেয়েছিল। সে সময় টিআরসেল, গুলির ঘটনা পর্যন্ত ঘটেছি। নারায়ণগঞ্জে এক শ্রেণির ভূমিদস্যু আছে যারা সংসদ সদস্যদের ছত্রছায়ায় সিন্ডিকেট করে রাজউক, বিআইডাব্লিউটিএ, রেলওয়ে, রোডর্স এন্ড হাইওয়ের জায়গা দীর্ঘদিন ধরে আত্মসাত করে আসছে। চাষাঢ়া বালুরমাঠের রাজুকের জমি তারা আত্মসাত করেছে। এই ভূমিদস্যুদের তৎপরতায় এখন রেলওয়ের জমি আত্মসাত করতে চাইছে।

তিনি আরও বলেন, সরকার দেশের ২১টি জেলায় জরিপ করেছে। যে জেলায় নদীবন্দর, রেলওয়ে ও বাস টার্মিনাল এক সাথে আছে সেখানে রাজউক ড্যাপ করে সরকারের কাছে জমা দিয়েছে। এর আগে মাস্টার প্ল্যান করেছে। সেখানেও নারায়ণগঞ্জ আছে। রেলওয়ের জায়গাগুলো আত্মসাতের জন্য ভূমিদস্যুরা আগে তৎপর ছিল এবং এখনো আছে। নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুলের বিপরিতপাশে এই ভূমিদস্যুরা দুটি মার্কেট করেছে।

রফিউর রাব্বি বলেন, অতিদ্রুত যদি মার্কেট নির্মাণ কাজ বন্ধ না করা হয় তাহলে কিভাবে এ কাজ বন্ধ করতে হয় তার অভিজ্ঞতা আমাদের আছে। মার্কেট নির্মাণ আমরা অবশ্যই বন্ধ করবো। সেই কর্মসূচিতে যদি সহিংসতা হয় তাহলে সরকার এবং প্রশাসন দায়ী থাকবে। আমরা কোনো সহিংসতায় যেতে চাই না। কিন্তু অনিয়ম করে জনগণের অধিকার নষ্ট করবেন তা হতে দিবো না।

সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের সভাপতি রফিউর রাব্বির সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এড. এবি সিদ্দিক আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর সভাপতি হাজ্বি নূর উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এড. মাহবুবুর রহমান মাসুম, বাসদ জেলা সমন্বয়কারী নিখিল দাস, ন্যাপ জেলা সাধারণ সম্পাদক এড. আওলাদ হোসেন, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানি সংকর রায়, নাসিক ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাস, গণসংহতি আন্দোলনের জেলা সমন্বয়কারী তরিকুল সুজন প্রমুখ।