এমপি সেলিম ওসমানের কারখানায় অগ্নিকান্ডে দেড় কোটি টাকার ক্ষতি

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লার উইজডম এ্যাটায়ার্স কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।এ দুর্ঘটনায় প্রায় ২৪ থেকে ২৫ টন নিট ফ্যাব্রিক্স, বিপুল পরিমান ডাইস, ৩টি স্কুইজার মেশিনসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক সরঞ্জাম পুড়ে গেছে।

শনিবার (২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন উইজডম এ্যাটায়ার্স কর্তৃপক্ষ। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমানের মালিকানাধীন শিল্প প্রতিষ্ঠান উইজডম এ্যাটায়ার্স লি.।

শুক্রবার (১ জানুয়ারি) রাত আনুমানিক সাড়ে ৮ টায় ফতুল্লায় অবস্থিত ওই কারখানাটির ডাইং সেক্টরে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছিল।। মন্ডলপাড়া ও ফতুল্লা ফায়ার সার্ভিসের দু’টি ইউনিট প্রায় ঘন্টা খানিক চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

কারখানা সূত্রে জানাগেছে, শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়াতে কারখানা বন্ধ ছিল। ধারনা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে। ডাইং সেক্টরে থাকা বিপুল পরিমান ফেব্রিকস পুড়ে গেছে। তবে এঘটনায় কোন হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও আনুমানিক কত টাকার মালামাল পুড়ে গেছে তা তাৎক্ষনিক ভাবে জানা যায়নি।

উইজডম এ্যাটায়ার্স কর্তৃপক্ষ জানান, ১ জানুয়ারীর অগ্নীকাণ্ডে ২৪ থেকে ২৫ টন নিট ফ্যাব্রিক্স ও ৩টি স্কুইজার মেশিনসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক সরঞ্জাম পুড়ে গেছে। এতে প্রায় দেড় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নারায়ণগঞ্জ মন্ডলপাড়া ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের ডেপুটি এসিসট্যান্ট ডিরেক্টর আব্দু্ল্লাহ আল-আরেফিন লাইভ নারায়ণগঞ্জকে শুক্রবার জানিয়েছিলেন, ‘উইজডম এ্যাটায়ার্সের ডাইং সেক্টরের ডাস্টে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছিল। সংবাদ পেয়ে মন্ডলপাড়া ও ফতুল্লা ফায়ার সার্ভিসের দু’টি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে দ্রুতই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।’

কারখানা সূত্রে জানাগেছে, শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়াতে কারখানা বন্ধ ছিল। ধারনা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে। ডাইং সেক্টরে থাকা বিপুল পরিমান ফেব্রিকসসহ বিভিন্ন মালাপত্র পুড়ে গেছে। এঘটনায় কোন হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও আনুমানিক কত টাকার মালামাল পুড়ে গেছে তা তাৎক্ষনিক ভাবে জানা যায়নি। পরবর্তিতে ক্ষয়ক্ষতির হিসেব নিরুপনের সময় দেখা যায়, প্রায় ২৪ থেকে ২৫ টন নিট ফ্যাব্রিক্স, বিপুল পরিমান ডাইস, ৩টি স্কুইজার মেশিনসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক সরঞ্জাম পুড়ে গেছে। যার আনুমানিক মূল্য দেড় কোটি টাকার মতো।

0