কাজ করানোর কথা বলে মাঠ কর্মীকে ধর্ষণের চেষ্টা

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: কাজ করানোর কথা বলে বাসা থেকে ডেকে এনে বন্দরে উষা ফাউন্ডেশনের মাঠ কর্মী (২৬)কে একই প্রতিষ্ঠানের তিন সহকর্মী জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা চালিয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

সোমবার (২৭ জুন) ভ’ক্তভোগী গৃহবধূ বাদী হয়ে একই প্রতিষ্ঠানের তিন লম্পট সহকারিকে আসামী করে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ৪৩(৬)২২।

এর আগে গত ২৪ জুন শুক্রবার রাত ৯টায় বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের আলীনগর এলাকায় ওই ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনাটি ঘটে।

এদিকে বন্দর থানা পুলিশ মামলা দায়েরের ওই রাতে আলীনগরস্থ আলাউদ্দিন দেওয়ানজী বাড়িতে অভিযান চালিয়ে উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানের লম্পট দুই সহকারিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। ওই সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জাহাঙ্গীর খন্দকার (৩০) নামে আরো এক লম্পট সহকারি কৌশলে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো পটোয়াখালী জেলার দুমকি থানার মুরাদিয়া এলাকার দুলাল হাওলাদারে ছেলে বেল্লাল হাওলাদার (৩০) ও নেত্রকোনা জেলার পূর্ব ধলা থানার ধারা এলাকার বদরুজ্জামান শেখের ছেলে মজিবুল হাসান (৩১)। পুলিশ গ্রেপ্তারকৃতদের ২৮ জুন মঙ্গলবার দুপুরে ওই মামলায় আদালতে প্রেরণ করেছে। তথ্য সূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার নরিংদী এলাকার এক গৃহবধূ দীর্ঘ দিন ধরে বন্দর উপজেলার আলীনগরস্থ উষা ফাউন্ডেশনে চাকুরি করে আসছে। এক সাথে চাকুরি করার সুবাদে একই প্রতিষ্ঠানের উল্লেখিত তিন সহকারি ভ’ক্তভোগী মাঠকর্মীকে বিভিন্ন সময়ে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এর ধারাবাহিকতায় গত ২৪ জুন শুক্রবার রাত ৯টায় লম্পট সহকর্মী জাহাঙ্গীর খন্দকার ভ’ক্তভোগী মহিলা মাঠকর্মীকে কাজের কথা বলে বাসা থেকে অফিসে ডেকে আনে। পরে উল্লেখিত তিন লম্পট ভ’ক্তভোগী মাঠকর্মী ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। ওই লম্পটরা ধর্ষনের ব্যার্থ হয়ে ভ’ক্তভোগী মহিলার গলায় থাকা ১০ আনা ওজনের স্বার্ণের চেইন ও ৬ আনা ওজনের কানের দুল ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।