খোকন সাহার প্রশ্ন ‘বাকী ১৬ লাখ টাকা কোথায়’

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বিগত ২০০৫ সালে জোট সরকারের আমলে এখানে ৩য় তলা বিল্ডিং করার জন্য ৩৫ লাখ টাকা দিয়েছিলো। কিন্তু সেখানে মাত্র ১৯ লাখ টাকা ঐ বিল্ডিং এর কাজে ব্যবহার করেছিলো। বাকি টাকা গুলো কোথায় আছে আমরা সেটি জানতে চাই বলে প্রশ্ন রেখেছেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারন সম্পাদক ও মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা।
বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারী) দুপুরে আদালতপাড়ায় আগামী ২৮ জানুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের মোহসীন-মাহাবুব প্যানেলের পক্ষে প্রচারণাকালে বিএনপিপন্থী আইনজীবী নেতাদের উদ্দেশ্যে এমন প্রশ্ন রাখেন তিনি।

খোকন সাহা বলেন, ‘ অনেকে অনেক কথা বলে, ঐ সমস্ত ভ্রান্ত রাজনীতিকদের আপনারা প্রত্যাখ্যান করবেন। ওরা (বিএনপি) বলে ওরা নাকি উন্নয়ণ করেছে। বিগত ২০০৫ সালে জোট সরকারের আমলে এখানে ৩য় তলা বিল্ডিং করার জন্য ৩৫ লক্ষ টাকা দিয়েছিলো, সেখানে ১৯ লক্ষ টাকা ঐ বিল্ডিং এর কাজে ব্যবহার করেছিলো। বাকি টাকা গুলো কোথায় আছে আমরা সেটি জানতে চাই। রশিদ ভাই, আমি এবং দিপু ১৭ লক্ষ টাকায় বার ভবনের ৪ তলা নির্মান করেছিলাম। অথচ, তারা ৩৫ লক্ষ টাকা দিয়ে ৩ তলা ভবন করেছিল।’

সাধারন আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, ‘আগামী ২৮ তারিখ নির্বাচনে আমাদের প্যাণেল কে যদি নির্বাচিত করতে পারেন তাহলে এই বারের উন্নয়ন হবে। এই বার ভবনের জাযগা দিয়েছিলেন আমাদের নেতা শামীম ওসমান আর এই ভবনটি করে দিয়েছিলেন সেলিম ওসমান। তিনি মোহসীন ও আমাদের সেক্রেটারী মাহাবুবকে অত্যন্ত ¯েœহ করেন। আমি বিশ^াস করি মোহসীন-মাহাবুব সেলিম ভাইয়ের কাছে কিছু চাইলে সেলিম ভাই সেটি না করতে পারবে না। আপনারা এই প্যানেলকে নির্বাচিত করে উন্নয়ণ করার সুযোগ দিবেন। উন্নয়ণের স্বার্থে এই প্যানেলকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করবেন।’

খোকন সাহা দাবী করেন, ‘আজকে এই ডিজিটাল বার ভবন কোনো সরকারী টাকায় হয় নাই। এটি দানবীর সেলিম ওসমানের টাকায় নির্মিত হয়েছে। আমাদের প্যানেল নির্বাচিত হলে এখানে আইনজীবীদের আর চায়ের দোকানে বসে থাকতে হবে না। আমরা শহরের মধ্যে তাদের বসার স্থান তৈরী করে দিবো। আমরা লইয়ারর্স ক্লাব তৈরী করবো। যাতে সেখানে বিশ্রাম করা যায়, আড্ডা দেয়া যায়, একটু সময় কাটাতে পারে। আর যদি কেউ নাও করে দেয় তাহলে কথা দিলাম, আমি নিজে করে দিবো।’
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এড. হাসান ফেরদৌস জুয়েল, মোহসীন-মাহাবুব প্যানেলের সকল প্রার্থীসহ সাধারন আইনজীবীরা।

0