‘গর্বিত পিতা-মাতা’য় ভূষিত ভিপি পাবেল দম্পতি, ছেলে ওয়াজকরনী হলেন কোরআনে হাফেজ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নিজের মতো করে পড়া শেষ করা, শিক্ষকের প্রতিটি আদের্শ যথাযথ পালন করা আর নম্র ভদ্রতার কারণে ছেলে মাহাদী হাসান ওয়াজকরনীর জন্য ‘গর্বিত পিতা-মাতা’ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন সাবেক ভিপি এ.টি.এম মশিউজ্জামান পাবেল ও তাহার সহধর্মীনি।

গত মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) সকালে তানযীমুল উম্মা হিফজ মাদ্রাসা নারায়ণগঞ্জ শাখায় অনুষ্ঠিত হিফজ্ সমাপ্তি অনুষ্ঠানে এ পুরস্কার তুলেন দেন তানজিমুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ড. মিম আতিকুল্লাহ।

বাংলা মিডিয়ামের পাশাপাশি দীর্ঘ ৫ বছর চেষ্টার পর হিফজ্ সমাপ্তির অনুষ্ঠানে ছেলের ভালো গুনের জন্য এ গর্বিত পিতা মাতার পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তারা।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন তানযীমুল উম্মা হিফজ মাদ্রাসার নারায়ণগঞ্জ শাখার অধ্যক্ষ মাওলানা কবির হোসেন, সহকারী অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা তৈয়বুর রহমান, ওয়াজ করনীর ওস্তাদত হাফেজ মাওলানা মাসুম বিল্লাহ্, মাওলানা আব্দুল মালেক সহ সকল শিক্ষকরা।

ছেলে মাহাদী হাসান ওয়াজ করনী হিফজ হওয়ার ওস্তাদদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ওস্তাদদের মনরক্ষার্থে বক্তব্য দিতে গিয়ে ভিপি পাবেল বলেন, তাদের মেহনতের ফলেই আমার ছেলে লাউহেমাহফুজে সংরক্ষিত কুরআন আমার ছেলের ছিনহায় হাফিজ করার তৌফিক আল্লাহ তায়ালা দান করেছেন। আমি ওস্তাদদের এবং সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা করি। কুরআনে হিফজ করার মধ্যেই যাতে সীমাবদ্ধ না থাকে কুরআন ও হাদিসের আলোকে জীবন পরিচালনা করতে পারেন সেজন্য সবার কাছে সন্তানের জন্য দোয়া কামনা করেন এবং আল্লাহ তায়ালার হুকুম আহকাম সর্বদা পালন করার তৌফিক নসীব করুন তাকে।

আবেগ আপ্লুত কন্ঠে বলেন, আজ তার দাদা দাদী বেঁচে থাকলে নাতির এই হিফজ্ সমাপ্তিতে সবচেয়ে বেশি খুশি হতেন তারা। তাদের রুহের মাগফেরাত এবং ছেলের কুরআন পড়ার কষ্ট কোরবানী আল্লাহ তায়ালা যাতে কবুল করেন এবং সমস্ত মুসলমানের রুহের মাগফেরাতের জন্য দোয়া কামনা করেন।

এসময় সকল শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ভিপি পাবেল বলেন, ফেইসবুক, ইউটিউভ সহ অনলাইনের সামাজিক যোগাযোগের খারাপ মাধ্যম গুলো থেকে তোমরা বিরত থাকবে। তোমাদের মনে রাখতে হবে অপবিত্রতা ও পবিত্রতা একসাথে অন্তরে অবস্থান করতে পারে না। এতে তোমাদের আমলের ক্ষতি হবে। অভিভাবকদেরও সচেতন থাকতে হবে, ছেলে মেয়েরা যাতে অপ্রাপ্ত বয়সে স্মার্ট মোবাইল ব্যবহার থেকে বিরত থাকে, এদিকে খেয়াল রাখবেন। আজকালকার ছেলে মেয়েরা খুবই নাজকু প্রকৃতির এবং আবেগী। ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি আমার অনুরোধ তোমাদের পিতা-মাতা ওস্তাদ শিক্ষকদের খেদমত করবে শরিয়াহ মোতাবেক। তোমাদের জানা উচিত পিতা-মাতা, ওস্তাদ শিক্ষকদের দোয়ায় দুনিয়া ও আখেরাতে কল্যাণ লাভ করা সম্ভব। ইনশাআল্লাহ্ ।

উল্লেখ্য, মেহেদী হাসান ওয়াজকরনী দৈনিক নারায়ণগঞ্জের সতকথার প্রকাশক ও সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাহার কমিশনার ও বেগম মমতাজ আজাহারের মেয়ের ঘরের বড় নাতী।