ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে দেবো না: খোকন সাহা

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: গতকাল আনোয়ার ভাইয়ের সাথে আমার কথা হয়েছে, উনি উত্তেজিতো হয়েছিলেন। আমি বলেছি আনোয়ার ভাই আপনি উত্তেজিতো হয়েন না, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা অবশ্যই আপনার সাথে আছে।

শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয় পার্টির এমপি কর্তৃক মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের নামফলক ভাঙ্গার প্রতিবাদ শীর্ষক ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধনে এ কথা বলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. খোকন সাহা।

খোকন সাহা বলেন, মাননীয় এমপি সাহেব নিশ্চই আপনার মনে আছে ৮০র দশকে যখন আমরা একসাথে ছাত্রলীগ করতাম তখন আনোয়ার ভাই আমাদের নেতা ছিলো। যে ঘটনাটি ঘটেছে নারায়ণগঞ্জের অন্য কোন এলাকায় ঘটলে সেই এলাকার সংসদ সদস্য অবশ্যই দুঃখ প্রকাশ করতো। আমি মনে করি আপনার দুঃখ প্রকাশ করা উচিত, এটা রাজনৈতিক শিষ্টাচার। এই ঘটনায় আনোয়ার ভাই ব্যথিত হয়েছেন দুঃখ পেয়েছেন।

এমপি খোকাকে দুঃখ প্রকাশের অনুরোধ জানিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আনোয়ার ভাইকে সান্তনা দেয়ার মতো ভাষা আমাদের নেই । আনোয়ার ভাই আমাদের গুরু তিনি আমাদের অভিভাবক। আমি খোকা সাহেবের কাছে অনুরোধ করবো আপনি আনোয়ার ভাইয়ের দুঃখে ব্যথিত হন দুঃখ প্রকাশ করেন এটাই হবে রাজনৈতিক বড় শিষ্ঠাচার।

খোকন সাহা বলেন, লিয়াকত হোসেন সাহেব ২০১৪ সালে সোনারগাঁয়ের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আপনার পাশে অবস্থান করেছিলেন। আমি এই কয়দিনে কয়েকটি পত্রিকা পরে দেখলাম কিছু সুযোগ সন্ধানীরা ঘোলা পানিতে মাছ ধরার অপচেষ্টায় লিপ্ত। এই যুগে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করা চলবেনা। সুযোগ সন্ধানীদের ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে আমি বা আনোয়ার ভাই দেবো না। খোকা সাহেবকে বলতে চাই আপনার মত সংসদ সদস্য এ কে এম সেলিম ওসমান সাহেব। বিখ্যাত দানবীর তিনি নারায়ণগঞ্জ শহরের মানুষের কাছে তিনি দানবীর হিসেবে পরিচিত সেলিম ওসমান। সেলিম ভাই আনোয়ার ভাইকে আমাদের গুরু হিসেবে সম্বোধন করে কথা বলেন। আপনি সেই ভাবেই তার প্রতি সম্মান করে কথা বলবেন তাহলেই সব কিছুর সমাধান হয়ে যাবে।

খোকন সাহা উপস্থিত সকলকে উদ্দেশ্য করে বলেন, গত কয়েকদিন যাবত কয়েকটি পত্রিকায় উল্লেখ করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ বিভক্ত। দীর্ঘ সতেরো বছর যাবত আনোয়ার ভাই সভাপতি আমি সাধারন সম্পাদক। আমি পরিস্কার ভাবে বলতে চাই আনোয়ার ভাইয়ের সাথে আমার মতবেধ হয় কিন্তু মত পার্থক্য কিন্তু হয় না। আমার ও আনোয়ার ভাইয়ের মধ্যে কোন ভেদাভেদ নেই। আনোয়ার ভাই যতটুকু কষ্ট পেয়েছে আমিও ততটুকু কষ্ট পেয়েছি।

মহানগর আওয়ামী লীগের আয়োজনে এই মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড.খোকন সাহা, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জিএম আরমান, আহসান হাবীব, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. মাহমুদা মালা, জিএম আরাফাত, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. আতিকুজ্জামান সোহেল, নাসিকের ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কবির হোসাইন, সাবেক কাউন্সিলর মো. মনিরুজ্জামানসহ আরও অনেকে।

0