চলছে লাঙ্গলবন্দে স্নানোৎসব, পূণ্যার্থীদের ঢল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: দেশ-বিদেশের লাখো পুণ্যার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে লাঙ্গলবন্দের প্রতিটি স্নানঘাট। এ বছর ১৬টি স্নান ঘাটে এই স্নানোৎসব উদযাপন করা হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার লাঙ্গলবন্দে ব্রহ্মপুত্র নদে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মহাঅষ্টমী স্নানোৎসব শুরু হয়েছে। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বেলা ১১টা ৪৮ সেকেন্ডে লগ্ন শুরু হয়েছে। আগামীকাল শনিবার সকাল ৮টা ৫৮ মিনিট ১৪ সেকেন্ডে লগ্ন শেষ হবে।

এদিকে স্নানোৎসবকে কেন্দ্র করে লাঙ্গলবন্দ এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। রয়েছে স্বাস্থ্য সেবার ব্যপক প্রস্তুতি।

‘হে মহাভাগ ব্রহ্মপুত্র হে লোহিত্য আমার পাপ হরণ কর’ এই মন্ত্র পাঠ করে ফুল, বেলপাতা, ধান, দুর্বা, হরতকী, ডাব, আম্রপল্লব সহযোগে প্রতিবারের মতো স্নান শুরু করেছেন পুণ্যার্থীরা। বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, নেপাল, ভুটান সহ বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় ১০ থেকে ১৫ লাখ পুণ্যার্থী এই স্নানে অংশ নেবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন আয়োজকরা। এই স্নানের মাধ্যমে সমস্ত পাপ মোচন সহ বিশ্ববাসীর শান্তি ও মংগল কামনা করছেন আগত পূণ্যার্থীরা।

এদিকে স্নান উৎসবে সবার নিরাপত্তায় র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার সদস্য মিলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দুই সহস্রাধিক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া পুরো লাঙ্গলবন্দের তিন কিলোমিটার এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় এনে স্বার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে বলে জানান জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ।

লাঙ্গলবন্দে প্রতিনিয়ত ভক্তদের সমাগম রয়েছে। তাদের তাৎক্ষণিক সেবার জন্যে লাঙ্গলবন্দে ৫ টি মেডিকেল টিম ও সোনারগাঁয়ের দিকে ১ টি মেডিকেল টিম নিযুক্ত করা হয়েছে। প্রতিটি টিমে প্রতিনিয়ত ১ জন ডাক্তার ও ২ জন সহকারী থাকবে। সকাল, দুপুর ও রাতে এই তিন সিফটে টিম কাজ করবে। যেকোন সময় তারা সাহায্য করতে পারবে।এছাড়াও লাঙ্গলবন্দে ১০ শয্যা বিশিষ্ট ২ টি অস্থায়ী হাসপাতাল করা হয়েছে। এতে বিভিন্ন রোগের জন্যে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামে সমৃদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও ৭টি এম্বুলেন্স নিযুক্ত করা হয়েছে।