ছন্নছাড়া মানববন্ধনে দাঙ্গার ফাঁকাওয়াজ

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: তিন কিলোমিটার মানববন্ধনের ফাঁকা আওয়াজ তুলে অবশেষে ২নং রেলগেইটে ক্ষুদ্র কর্মসূচিতে নারায়ণগঞ্জে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টার অভিযোগ তুললেন নারায়ণগঞ্জ সিটি মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। শনিবার (২৩ অক্টোবর) সকালে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও শান্তির পক্ষে ঢাক ঢোল পিটিয়ে মানববন্ধন করার পূর্ব ঘোষনা শেষমেষ ক্ষুদ্র সভায় রূপ নেয়।কথিত এ মানবন্ধনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে শুধু নিজেকে হাইলাইট করেছেন মেয়র আইভী। বলেছেন, ‘সম্প্রীতির শহর এই নারায়ণগঞ্জে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী মানুষের বসবাস। অথচ এই নারায়ণগঞ্জে যারা সম্প্রীতির কথা বলে জাতীয় স্বার্থকে বাদ দিয়ে ব্যক্তি আইভীকে নিয়ে রাজনীতি করেন তাদেরকে ধিক্কার জানাই’।

আইভী আরও বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের চুনোপুটি নেতারা আইভীর বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে কথা বলেন। শহীদ মিনারের মতো পবিত্র জায়গায় দাঁড়িয়ে যারা মিথ্যাচার করে তারাই এই সা¤প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর জন্য উসকানি দিচ্ছে। নারায়ণগঞ্জে বিগত এক বছর যাবৎ অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে চক্রান্ত করে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আমি তাদেরকে সাবধান করে দিতে চাই। এই সম্প্রীতির শহরে রাজনৈতিক কারণে ব্যক্তি আইভীর বিরুদ্ধাচরণ করতে ষড়যন্ত্র করার জন্য হিন্দুদের মধ্যে বিভেদ তৈরি করবেন না’।

সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সভাপতিত্বে এই মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য আনিসুর রহমান দিপু, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আবদুল কাদির, আদিনাথ বসু, আসাদুজ্জামান, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক নিজাম উদ্দিন আহমেদ, জেলা যুবলীগের সহ সভাপতি আহাম্মদ আলী রেজা রিপন, মহানগর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আহাম্মদ আলী রেজা উজ্জ্বল, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আবু জাফর, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি শঙ্কর সাহা, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শঙ্কর রায়সহ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের নেতৃবৃন্দ, আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

এদিকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও শান্তির পক্ষে মানববন্ধন আয়োজন করা হলেও স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের দু একজন ছাড়া অন্যরা এতে যোগ দেননি।

আর মেয়র আইভীর সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টার অভিযোগ প্রসঙ্গে জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিখন সরকার শিপন বলেন, কুমিল্লার ঘটনায় দেশের বিভিন্নস্থানে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটলেও নারায়ণগঞ্জের কোথাও কোন আওয়াজ পর্যন্ত হয়নি। তাহলে তিনি (আইভী) কিসের দাঙ্গার কথা বলেছেন। তিনি কি চান শান্তির নারায়ণগঞ্জে দাঙ্গা হোক? তাহলে বারবার কেন হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গার কথা বলে উসকানী দিচ্ছেন। মুলত হিন্দু সম্প্রদায়ের শত কোটি টাকার দেবোত্তর সম্পত্তি দখল করে রেখেছেন মেয়র আইভী ও তার পরিবারের সদস্যরা। এনিয়ে এখানকার হিন্দু সম্প্রদায় আন্দোলন সংগ্রাম করছে। এজন্যই তার মানববন্ধনে দুএকজন চাটুকার ছাড়া কেউ যায়নি। তার কথায় মনে হচ্ছে, তিনি চান শহরে দাঙ্গা লাগুক। যেন তাদের দখলে থাকা দেবোত্তর সম্পত্তি নিয়ে আর আন্দোলন না হয়।

0