ছাত্রদের হাফ পাশ দাবীর প্রতি সমর্থন আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: দ্রব্যমুল্যের উর্ধ্বগতি ও তেলের মুল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদসহ বাসে হাফপাশ দাবিতে চলমান ছাত্র আন্দোলনের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে মানববন্ধন করেছে সামাজিক সংগঠন আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী। শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব চত্ত্বরে “আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী” সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদ হোসেনের সঞ্চালনায় সংগঠনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নূর উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, ছাত্রদের আন্দোলন দাবী নয়, সেটা অধিকার। তাদের হাফ পাশ করা যুক্তিসঙ্গত। তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারনে দেশে প্রতিটা পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে, কিন্তু মানুষের আয় বৃদ্ধি পায়নি। নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রীরা যাতায়াত করে। তাদের অভিভাবকরা শিক্ষা উপকরণ সরবরাহ সহ টিউশন ফি, শিক্ষা খাতের ব্যয় সরবরাহ করতে আয়-ব্যয়ের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ নয়। এ অবস্থায় দেশের শিক্ষার মান হ্রাস পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও শিক্ষার যাবতীয় ব্যয় বহন করবে সরকার, যা জাতীয় সংবিধানের মৌলিক দাবী। কিন্তু সরকার তা করছে না। এছাড়াও তিনি তার বক্তব্যে আরো বলেন, চাষাড়া থেকে রেলপথ চালু এবং চাষাড়া ও ২নং গেইটে ফুটওভার ব্রিজ করার জোড় দাবী জানান।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাসির উদ্দিন মন্টু তার বক্তব্যে বলেন, সারাবিশ্বে জ্বালানি তেলের মূল্য হ্রাস পেয়েছে কিন্তু বাংলাদেশে তেলের মূল্য বৃদ্ধি কোন যথাযথ যুক্তি আছে বলে মনে করি না। ইদানিং দেখা যায়, সিলিন্ডার গ্যাসের মূল্য কিছুটা কমানো হয়েছে। যাহা আন্তর্জাতিক বাজার মূল্যের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ নয়। আমরা জানতে পারি যে, বিভিন্ন যায়গায় সিলিন্ডার গ্যাস ব্লাষ্ট হয়ে অনেক মানুষ হতাহত হয়েছে। ফলে আবাসিক খাতে গ্যাস লাইন পুনরায় চালু সহ চাষাড়া হইতে নিতাইগঞ্জ মোড় পর্যন্ত তিতাস গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানীর সাথে চুক্তি অনুযায়ী নয় ইঞ্চি পাইপলাইন বসানোর জন্য জোড় দাবী জানান।

শ্রমিক নেতা মাহমুদ হোসেন বলেন, নারায়ণগঞ্জ শহরে যানযটের কারন হচ্ছে বিভিন্ন পরিবহনের তাদের নিজস্ব গ্যারেজ না থাকার কারনে খানপুরের মোড় হইতে শহরতলীর বিভিন্ন রাস্তায় এলাপাথারি ভাবে গাড়ি রাখার কারনে যানযট সৃষ্টি হয়। তাছাড়া নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের রেকার ব্যবহার না করার কারনে যানযট সৃষ্টি হয়। শহরে বিভিন্ন বড় বড় দালান কোঠাগুলি বেশির ভাগ গ্রাউন্ড ফ্লোরে গাড়ী রাখার জায়গা না থাকায় বিভিন্ন অফিসে আসার মানুষেরা যানযট সৃষ্টি করে। ইদানিং, আমরা নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনে ট্যাক্স প্রদান করার সময় দেখতে পাই ৩% পানির কর নেওয়া হচ্ছে। যাহা সিটি কর্পোরেশন করতে পারে না। ওয়াসার পাইপলাইন সংস্কার করবে, ওয়াসা ব্যবসা করবে, পুঁজি তারা বিনিয়োগ করবে। কিন্তু তা না করে জনগনের টাকা নিয়ে পানির ব্যবসা করবে এটা নেহাত অন্যায়। নারায়ণগঞ্জের জনগণকে বোকা বানানো হচ্ছে। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই এবং আমাদের মানববন্ধনের দাবী সমূহের প্রতি পূণঃ সমর্থন জানাই।

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, সভাপতি মন্ডলির সদস্য জনাব মোঃ কুতুব উদ্দিন, আব্দুল কুদ্দুস আজাদ, আনোয়ার হোসেন দেওয়ান, শফিকুল ইসলাম খান ও সম্পাদক মন্ডলির সদস্য জনাব জাহাঙ্গীর কবির পোকন, মাকিদ মোস্তাকিম শিপলু, জহিরুল ইসলাম মিন্টু, সাইফুল ইসলাম। অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য দেন নারায়ণগঞ্জ হাই স্কুলের অভিভাবক প্রতিনিধি ওয়াহিদ সাদাত বাবু, সরকার আলম, পপি রানী সরকার, শাহ মোঃ ফয়েজুল্লাহ, আল আমিন।

বক্তাগণ সকলেই সড়ক দূর্ঘটনায় যারা নিহত হয়েছেন তাদের প্রতি সমবেদনা ও এক জীবনের ক্ষতিপূরণের দাবী জানায় এবং আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সংগঠনের কর্মসূচীর প্রতি সমর্থন জানায়।

সভায় উপস্থিত ছিলেন আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর নেতৃবৃন্দ যথাক্রমে মোঃ মোস্তফা কামাল, হাজী মোঃ সেলিম হোসেন, হাজী আহমদ আলী বেপারী, হাজী মোঃ রুহুল আমিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ হোসেন জুলু, মোঃ ইয়াকুব, দেলোয়ার হোসেন, উত্তম কুমার দাস, আব্দুর রশিদ, শফি উদ্দিন শফি, আব্দুল মজিদ, অঞ্জন দাস, দিলীপ কুমার মোদক, মোঃ ইকবাল শেখ, মোঃ গিয়াস উদ্দিন, আব্দুল মান্নান তালিশ, মোঃ চুন্নু মিয়া, এনামুল হক লিখন, মোঃ মনির হোসেন, মোঃ শহিদুল ইসলাম সুভ্র, মোঃ আব্দুল্লাহ ইউসূফ, মোঃ মামুন, মামুনুর রহমান, কাজী তারেক সহ অসংখ্য আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর নেতাকর্মী ও সমর্থকবৃন্দ।