জরুরী সভায় বাবু চন্দন শীল ‘কত বড় সাহস নিজামের বিরুদ্ধে জিডি করে!’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আজকে আওয়ামী পরিবারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে। আমরা সেই আওয়ামী লীগ করি, যে আওয়ামী লীগ নারায়ণগঞ্জে জন্ম হয়েছে। আমরা শামীম ওসমানের নেতৃত্বে রাজনীতি শুরু করেছি। জিয়াউর রহমানকে তোলারাম কলেজে প্রবেশ করতে দেইনি।

শনিবার (৬ এপ্রিল) বিকালে ইসদাইর অক্টো অফিস সংলগ্ন বাংলা ভবন কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত এক জরুরী কর্মী সভায় মহানগর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি বাবু চন্দন শীল এ কথা বলেন।

আওয়ামীলীগের নেতা সামসুল ইসলামের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুহাসনাত মো. শহিদ বাদল ও মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. খোকন সাহা।

জরুরী সভায় বাবু চন্দন শীল ‘কত বড় সাহস নিজামের বিরুদ্ধে জিডি করে!’

জরুরী সভায় বাবু চন্দন শীল ‘কত বড় সাহস নিজামের বিরুদ্ধে জিডি করে!’

Geplaatst door Live Narayanganj op Zaterdag 6 april 2019

বাবু চন্দন শীল বলেন, স্বৈরাচার মোকাবেলা করেছি। কোন রক্ত চক্ষুর হুমকি-ধমকি আমাদেরকে দমাতে পারেনি। আজ সেই আমাদের আওয়ামীলীগেকে ধ্বংস করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে। আমরা ২ মার্চ সভায় ঘোষণা করেছি, নারায়ণগঞ্জ মাদক, ইভিটিজং, সন্ত্রাস চাদাবাজ মুক্ত হবে। অথচ, সেই আমাদের বিরুদ্ধে ষরযন্ত্র চলছে।

তিনি আরো বলেন, কিছু ঘুষখোর কর্মকর্তা জামাতের পয়সায় আওয়ামী পরিবারকে ধ্বংস করার জন্য মরিয়া হয়েছে। তাদের সাহস কত বড় আমাদের নেতা নিজামের বিরুদ্ধে জিডি করে। অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমরা লড়াই করেছি। এবার নারায়ণগঞ্জ ঘুষখোর মুক্ত হবে।

আজকের সভায় আসা অনেক নেতাই এই প্রতিবেদক জানান, ফতুল্লা থানায় পুলিশ বাদি হয়ে শাহ নিজামের বিরুদ্ধে জিডি করেন ২৯মার্চ। ৩৪ বছরের রাজনৈতিক জীবনে শাহ নিজামের বিরুদ্ধে কোন থানায় জিডি নেই। শত প্রতিকুলতায় বিরোধী দলে থেকেও শাহ নিজামের বিরুদ্ধে কেউ কখনও অভিযোগ করেনি। কেন না জেলায় সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন নেতা হিসেবে তিনি বেশ জনপ্রিয়। সবার কাছে ক্লীন ইমেজের শাহ নিজাম হিসেবেই পরিচিত। বর্তমান নিজ দল ক্ষমতায়, এ অবস্থায় পুলিশ প্রশাসন দ্বারা জিডি’র ঘটনা বেশ সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।

শাহ নিজাম প্রসঙ্গে অন্যান্য নেতারা আরো জানান, ছাত্র রাজনীতি থেকে বর্তমান পর্যন্ত একটি আর্দশ ও নীতি নিয়ে শামীম ওসমানের নেতৃত্বে করে আসছেন শাহ নিজাম। তিনি আর্দশ ও নীতির প্রশ্নে কখনও আপোষ করেননি। যার কারণে তিনি শামীম ওসমানের স্নেহভাজন ও আদরের। শাহ নিজামও শামীম ওসমানকে সম্মান করেন পিতার মতো।

উক্ত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল আলী, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি ইব্রাহিম চেংগিস, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম সাইফ উল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী, সদর থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার সভাপতি মজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন, বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এ রশিদ, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মহসিন মিয়া, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আজিজুর রহমান আজিজ, মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ প্রমুখ।