জ্বালানি তেল বিক্রি কমিশন বৃদ্ধি করতে হবে: মিজান প্রধান

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বিশ্ববাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে সরকার। জ্বালানি তেলের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যাওয়া নিয়ে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার মানুষ। এদিকে, ফিলিং স্টেশন ব্যবসায়ী পড়েছে বিপাকে, তাদের অভিযোগ ‘ডিলার বা এজেন্টদের বিক্রয় কমিশন বৃদ্ধি করা হয়েছে ন্যূনতম হারে। পাহাড় সমান বিনিয়োগ করে সামান্য কমিশনে তেল বিক্রয় করে কোন ফিলিং স্টেশন চালু রাখা সম্ভব নয় বা বন্ধ করা ছাড়া কোন উপায় থাকবে না বলে জানান তারা।

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলার্স, ডিস্ট্রিবিউটর্স, এজেন্টস এন্ড পেট্রোল পাম্প ওনার্স এসোসিয়েশনের নারায়ণগঞ্জ জেলা আহবায়ক মিজানুর রহমান মিজান প্রধান লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, হঠাৎ করেই জ্বালানি তেল ডিজেল, পেট্রোল, অকটেন ও কেরোসিনের দাম সরকার তার নিজের প্রয়োজনে পূর্বের সমস্ত রেকর্ড ভঙ্গ করে আকাশসম দাম বৃদ্ধি করেছে। অথচ ডিলার বা এজেন্টদের বিক্রয় কমিশন বৃদ্ধি করা হয়েছে ন্যূনতম হারে। যেখানে পূর্বেই বিক্রয় কমিশন যা ছিল সেই কমিশনে ফিলিং স্টেশন ব্যবসাটি বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছিল, সেখানে ডিলার বা এজেন্টদের পাহাড় সমান বিনিয়োগ বৃদ্ধি হবে জেনেও সরকার পুনর্বার কমিশন আনুপাতিক হারে বৃদ্ধি না করে, ডিলার বা এজেন্টদের উপেক্ষিত করল। ফলে পাহাড় সমান বিনিয়োগ করে সামান্য কমিশনে তেল বিক্রয় করে কোন ফিলিং স্টেশন চালু রাখা সম্ভবপর নহে বা বন্ধ করা ছাড়া কোন উপায় থাকবে না।

তিনি বলেন, অন্যদিকে মূল্যবৃদ্ধি ঘোষণার সাথে সাথে দেশের সমগ্র ফিলিং স্টেশনে ক্রেতারা তেল ক্রয় করার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ে। ক্রেতারা মনে করে ফিলিং স্টেশন ব্যবসায়ীরা মূল্যবৃদ্ধি করে কোটি কোটি টাকা লাভ করবে, আর সেই ভাবনা থেকেই সকল ফিলিং স্টেশনের যে মজুদ ছিল তা দাম বৃদ্ধির ঘোষণার সাথে সাথে ক্রেতারা জোর-জুলুম করে ফিলিং স্টেশন থেকে রাতারাতি তেল ক্রয় করে নিয়ে ফিলিং স্টেশনের মজুদ শূন্য করে দেয়। দেশের বিভিন্ন জেলায় ফিলিং স্টেশনে তেল না থাকায় এবং লোডশেডিং এর কারণে রাত ১০টার পর ফিলিং স্টেশন বন্ধ হয়ে যাওয়ায়,
ক্রেতারা ফিলিং স্টেশনে ভাংচুর করেছে। অথচ দাম বৃদ্ধির ফলে ডিলার বা এজেন্টদের ডিপো থেকে ৯হাজার লিটার তেল উত্তোলন করতে নতুন করে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।

মিজান প্রধান বলেন, এ বিষয়টি কখনই ক্রেতা সাধারণ বোঝেনা বা ভাবেই না, এমনকি সরকারসহ জ্বালানি সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি জেনেও চোখ বুজে থাকেন। আর সবসময়ের মত উপেক্ষিত হচ্ছে জ্বালানি ব্যবসায়ীরা। তাই সরকারসহ জ্বালানি সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণপূর্বক জানাচ্ছি যে, অনতিবিলম্বে জ্বালানি তেল বিক্রয় কমিশন আনুপাতিক হারে বৃদ্ধি করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করুন, অন্যথায় আমাদের বন্ধ করতে হবে না, আপনা-আপনি ফিলিং স্টেশন সমূহ বন্ধ হয়ে যাবে।