দিনে ১৭৫ টাকা পরিচ্ছন্নকর্মীদের হাজিরা, চলতে কষ্ট হচ্ছে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: সব কিছুই মূল্য বাড়ছে! এ নিয়ে সম্প্রতি সময়ে বেশ সমালোচনা শুরু হয়েছে নগরবাসীর মাঝে। অবস্থা যখন বেগতিক; তখন ১৭৫ টাকা বেতনে চাকুরি করা পরিচ্ছন্ন কর্মীরা নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পাড়ছে না।

গত কয়েক দিনেও মতো পরিচ্ছন্ন কাজ শেষ করে সোমবারও নগর ভবনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ওয়াকার্স ইউনিয়নের ব্যানারে সকাল থেকে এই কর্মসূচি পালন করেন কয়েক শতাধিক পরিচ্ছন্ন কর্মী। বিকাল ৩টায় শেষ হয়।

এ সময় পরিচ্ছন্ন কর্মীরা বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এর ২১০ (১) ধারা মোতাবেক ছয় দফা দাবি তোলেন।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক কিশোর লাল জানান, সকল শ্রমিককে নিয়োগপত্র প্রদান করতে হবে। পরিচ্ছন্ন কর্মীদের চাকুরী স্থায়ী করতে হবে। নুন্যতম দৈনিক হাজিরা ৬৫০ টাকা ও ট্রাক শ্রমিকদের ৭৫০ টাকা করতে হবে। প্রত্যেক শ্রমিকের বেতন সমপরিমান ঈদ বা পূজার বোনাস প্রদান করতে হবে। প্রতি ওয়ার্ডে ২ জন ডোম নিয়োগ দিতে হবে। কাজ করতে গিয়ে দূর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করলে ৫ লাখ টাকা ও স্বাভাবিক মৃত্যু হলে কাষ্ট বা দাফনের জন্য ৫০ হাজার টাকা দিতে হবে। এছাড়া সিদ্ধিরগঞ্জ ও বন্দরে পরিচ্ছন্নকর্মীদের স্থায়ী বসবাসের ব্যবস্থা করতে হবে।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া শ্রমিকরা জানান, বিশ্ব যখন অর্থনৈতিক মন্দার কারণে পিছিয়ে যাচ্ছে। ধনিরাও অর্থনীতি নিয়ে চিন্তিত। তখন মাত্র ১৭৫ টাকা দৈনিক কাজ করে কিভাবে সংসার পরিচালনা করবো। তাই বাধ্য হয়েই রাজপথে আন্দোলনে নেমেছি।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শিমুল দাস জানান, নিয়োগপত্র পাওয়া একজন শ্রমিকের অধিকার। কিন্তু পরিচ্ছন্ন কর্মীরা সেই নিয়োগ পায়নি। একই ভাবে চাকুরি গুলো স্থায়ী নয়। পাশাপাশি মঞ্জুরীও কম। দাবি গুলো অত্যান্ত যৌক্তিক। তাই আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম জানান, সমস্যা সমাধানে সিটি মেয়রকে প্রয়োজন। কিন্তু তিনি প্রভাশে রয়েছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি মেয়র প্রবাসে রয়েছে। তিনি আসলে সমস্যাটি উপস্থাপন করা হবে।