দেশীয় অস্ত্রসহ ৭ কিশোর গ্রেপ্তার, র‌্যাব বলছে ‘টেনশন গ্রুপ’র সদস্য

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: দেশীয় অস্ত্রসহ ৭ কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। সংস্থাটির দাবি, গ্রেপ্তার ৭ কিশোর দুর্র্ধর্ষ কিশোর গ্যাং ‘টেনশন গ্রুপ’র সদস্য ও লিডার।

নারায়ণগঞ্জের আদমজীনগর র‌্যাব-১১ কার্যালয় থেকে রোববার (৭ আগস্ট) দুপুরে প্রেরিত এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন মোঃ শফিকুল ইসলামের ছেলে গ্যাং লিডার মো. রাইসুল ইসলাম সিমান্ত, তার সহযোগী মো. নজরুল মিয়ার ছেলে মো. নাঈম মিয়া, হাজী মো. আল আমিনের ছেলে মোঃ হাসান, মোঃ ইসলামের ছেলে মোঃ পারভেজ মিয়া, মো. আব্দুল হাকিমের ছেলে আবির বিন হাকিম, মো. আমান উল্লাহর ছেলে মো. রাহাত ও হাজী নুরুল ইসলামের মো. রিয়াদুল ইসলাম। প্রত্যেকের বয়স ২১ হতে ২৪ বছর।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে জনমনে ত্রাস ও ভয়ভীতি সৃষ্টিকারী দুর্র্ধর্ষ কিশোর গ্যাং “টেনশন গ্রুপ” এর ০৭ জন সদস্য গত ০৬ আগষ্ট দিবাগত রাতে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর তাদের তল্লাশি করে ১টি গুপ্তি ছোরা, ২টি গিয়ার সুইচযুক্ত ধারালো চাকু, ২ রছোরা এবং ২টি লোহা ও ষ্টিলের পাইপ উদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা নিজেদেরকে কিশোর গ্যাং “টেনশন গ্রুপ” এর সদস্য বলে পরিচয় দিয়ে থাকে।

বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব জানান, জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা গেছে, গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা পরস্পর যোগসাজসে তাদের প্রতিপক্ষ কিশোর গ্যাং এর সদস্যদের ঘায়েল করার জন্য শক্তির মহড়া ও দাপট প্রদর্শন করে ঘটনাস্থলে গুপ্তি ছোড়া, লোহার ও ষ্টিলের পাইপ, ছোরা, সুইচগিয়ার চাকুসহ একত্রিত হয়েছিল। তারা দীর্ঘদিন যাবৎ রাস্তা ঘাটে পরিকল্পিতভাবে দলবদ্ধ হয়ে সংঘাত সৃষ্টি ও জনমনে অস্ত্রের ভয়ভীতি দেখিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে আসছিল। তারা ৭ থেকে ১০ জনের একটি গ্রুপ সংঘবদ্ধ হয়ে বিভিন্ন সময় সিদ্ধিরগঞ্জ ও এর আশপাশের এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে ভয়ভীতি বা ত্রাস সৃষ্টি করে বিশৃঙ্খলা বা অরাজকতা সৃষ্টি করে আসছে। এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাব ১১, সিপিএসসি এর গোয়েন্দা টীম এই ব্যাপারে যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং সুনির্দিষ্ট তথ্য এর ভিত্তিতে বর্ণিত কিশোর গ্যাং এর সদস্যদের সকল আলামত সহ হাতেনাতে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।