দেশীয় ফল উৎসবের আয়োজন করলেন বিদ্যানিকেত স্কুল

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘শুধু পুঁথিগত শিক্ষা একটি শিশুকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারেনা। এজন্য পুঁথিগত শিক্ষার পাশাপাশি প্রয়োজন তার মানসিক বিকাশ। সেজন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে পুঁথিগত বিদ্যার পাশাপাশি খেলাধুলা এবং সংস্কৃতি চর্চ্চা বাড়াতে হবে। এ ক্ষেত্রে নারায়নগঞ্জে কয়েকটি স্কুলে খেলাধুলা এবং সংস্কৃতি চর্চ্চা হচ্ছে। তার মধ্যে অন্যতম বিদ্যানিকেতন হাই স্কুল। তারা প্রতিটি সময় ব্যাতিক্রম ধর্মী অনুষ্ঠান আয়োজন করে থাকে। যে কারনে এ স্কুলের শিক্ষার্থীদের শিক্ষার পাশাপাশি মানসিক বিকাশ ঘটছে।’

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) সকালে শহরের পশ্চিম দেওভোগে অবস্থিত বিদ্যানিকেতন হাই স্কুলে আয়োজিত দেশীয় ফল উৎসবে একথা বলেন অনুষ্ঠানে আগত বিভিন্ন অতিথিরা।

অতিথিরা আরও বলেন, আমাদের বাঙ্গালী হিসেবে সন্তানদের গড়ে তুলতে হবে। এজন্য আমাদের সন্তানদের দেশীয় সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যের সাথে পরিচিত করার জন্য বিদ্যানিকেতন যে দেশীয় ফলের উৎসব আয়োজন করেছে তা প্রশংসার দাবী রাখে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম, নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান মনির, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর আফসানা আফরোজ বিভা হাসান, শারমীন হাবিব বিন্নি, বিদ্যানিকেতন ট্রাষ্টের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবদুস সালাম, ট্রাষ্টি সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন সোহেল, এড. নবী হোসেন, জাকির হোসেন, জেলা শিক্ষা গবেষনা কর্মকর্তা নাজমুন্নাহার, বিদ্যানিকেতন হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক উত্তম কুমার সাহা।

শিক্ষার্থীদের আয়োজনে স্কুলের মাঠে অনুষ্ঠিত ফল উৎসবে নার্সারী থেকে শুরু করে দশম শ্রেনী পর্য়ন্ত ৩২টি শাখা নিজেদের শ্রেনী শিক্ষকের তত্বাবধানে ৩২টি ষ্টল করেছে। প্রতিটি ষ্টলে দেশী ফলের প্রদর্শনী করে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে দেশীয় ফলের সাথে পরিচিত করে দেয়া হয়। একটি ষ্টলে সর্বোচ্চ ৪২ দেশীয় জাতের ফলের প্রদর্শনী করা হয়। এর মধ্যে ছিল আম, জাম, কাঁঠাল, লিচু, ঢেওয়া, বেতুন, আঁখ, কতবেল, কাঁঠ লিচু, আমড়া, কাউ, গাব ইত্যাদি।