দৈনিক ইয়াদের যুগপূর্তি হয়ে উঠে মিলন মেলা

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: প্রেসক্লাব, সাংবাদিক ইউনিয়ন, পত্রিকা সম্পাদকসহ মাঠ পর্যায়ে কর্মরত ছোট-বড় সকল সাংবাদিকদের এক কাতারে নিয়ে এসে এক অনাড়ম্বর যুগপূর্তি অনুষ্ঠান উদযাপন করলেন দৈনিক ইয়াদ পত্রিকার সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন।

বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) নগরীর বিবি রোডস্থ নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের তৃতীয় তলায় অবস্থিত সিনামন চাইনিজ রেস্টুরেন্টে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল।

যেই অনুষ্ঠানে ছিল না কোন মন্ত্রী, এমপি, মেয়র, জনপ্রনিধি কিংবা কোন প্রধান বা বিশেষ অতিথি। একটি পত্রিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শুধুমাত্র উপস্থিত সাংবাদিকরাই ছিলেন অতিথি। যেখানে সিনিয়র থেকে শুরু করে শিক্ষানবিশ সাংবাদিকদের মিলনমেলা বসেছিল। আর অনুষ্ঠানের আয়োজক ইয়াদ পত্রিকার সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেনের এমন ব্যাতিক্রমী আয়োজন দেখে অনেকেই তাঁর প্রশংসা করেছেন।

কেউ কেউ মন্তব্য করেন, ‘নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব বা সাংবাদিক ইউনিয়নের কয়েকজন সিনিয়র সাংবাদিকদের সাথে স্থানীয় মাঠ পর্যায়ের সাংবাদিকদের একধরনের দূরত্ব ছিল। কিন্তু এমন একটি ব্যাতিক্রমী অনুষ্ঠান আয়োজন করে তোফাজ্জল হোসেন বিভিন্ন সংগঠনের এবং মাঠ পর্যায়ে কর্মরত সিনিয়র-জুনিয়র সাংবাদিকদের এককাতারে নিয়ে এসে অনুষ্ঠানস্থল সকলের মিলনমেলায় পরিনত করে সেই দূরত্ব ঘুঁচিয়ে দিয়েছেন। যা সত্যিই প্রশংসনীয়।

জানাগেছে, বিগত ২০০৮ সালে যাত্রা শুরু করে অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে সামনের দিকে পথচলা শুরু করে দৈনিক ইয়াদ। বিদায়ী ২০২০ সালের শেষ দিনে কেক কাটার মাধ্যমে যার যুগপূর্তি উদযাপন করা হয়।

দৈনিক ইয়াদ পত্রিকার সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু সাউদ মাসুদ, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জীবন, কার্যকরী কমিটির সদস্য বিল্লাল হোসেন রবিন, সাংবাদিক ও কলামিস্ট রণজিৎ মোদক, দৈনিক অগ্রবানী পত্রিকার সম্পাদক স্বপন চৌধুরী, ফতুল্লা মডেল প্রেস ক্লাবের সভাপতি আনিসুজ্জামান অনু, মানবকন্ঠের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি নাহিদ আজাদ, দৈনিক সংগ্রামের জেলা প্রতিনিধি তমিজউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

দৈনিক ইয়াদ পত্রিকার সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন বলেছেন, ‘অনেকেই আমার বিরুদ্ধে অনেক কথা বলেন। কিন্তু আমি কারো কাছে মাথা নত করিনি। আমি উত্তর-দক্ষিণ বুঝিনা, যেখানে দুর্নীতি, অনিয়ম অনাচার, অপরাজনীতি, সন্ত্রাস চলবে, তাদের বিরুদ্ধে আমার কলম চলবেই।’

তিনি আরও বলেনম, ‘অমাকে মিথ্যা চাঁদাবাজী মামলায় আমাকে ৮মাস জেল খাটতে হয়েছে। তখন আমি কষ্টে জীবন যাপন করলেও কারো কাছে সহযোগিতা চাইনি। অভাব অনটনের মধ্যেই একদিনের জন্যও পত্রিকা বন্ধ করেনি। সত্য লিখতে আমি কখনো পিছপা হইনি। আমি সাংবাদিকতা পেশাকে মহান পেশা মনে করি বলেই আমার সন্তানদের এই পেশায় নিয়ে এসেছি।’

0