ধলেশ্বরীতে ১০ জনের মৃত্যু: এমভি ফারহান-৬ লঞ্চের মাস্টারসহ তিনজনের বিরুদ্ধে পরোয়ানা

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ধলেশ্বরী নদীর ধর্মগঞ্জে লঞ্চের সঙ্গে ট্রলারের সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় এমভি ফারহান-৬ লঞ্চের মাস্টার-ড্রাইভার ও ট্রলারের সুকানির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

ঢাকার মেরিন কোর্টের বিচারক (স্পেশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট) জয়নাব বেগমের আদালতে বুধবার (১২ জানুয়ারি) ওই হতাহতের ঘটনায় নৌপরিবহন অধিদপ্তরের মুখ্য পরিদর্শক মো. শফিকুর রহমান বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

এছাড়া গ্রেপ্তার সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৩১ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত।

যাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে তারা হলেন- এমভি ফারহান-৬ লঞ্চের মাস্টার কামরুল হাসান, ড্রাইভার জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া ও ট্রলারের সুকানি জসিম মোল্লা।

নৌ-আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি বেল্লাল হোসাইন মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ৫ জানুয়ারি বুড়িগঙ্গার ধর্মগঞ্জে এমভি ফারহান-৬ লঞ্চের সঙ্গে একটি ট্রলারের সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত নয়জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

ঘটনার দিন পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছিলেন, সকাল ৯টার দিকে বক্তাবলী ঘাট থেকে ৪০ থেকে ৫০ জন যাত্রী নিয়ে একটি ট্রলার ধর্মগঞ্জ চতলারমাঠ ঘাটে আসছিল। অপরদিকে বরিশাল থেকে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ ঢাকার উদ্দেশে যাচ্ছিল। ধর্মগঞ্জ চতলারমাঠ গুদারাঘাট বরাবর লঞ্চ ও ট্রলারের সংঘর্ষ হয়। এতে ট্রলারটি ডুবে যায়।

এ ঘটনার পর ৯ যাত্রী যাত্রী নিখোঁজ ছিল। টানা ৭ দিন অভিযান চালিয়ে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।