নবজাতককে ফেলে দিয়ে হত্যার ঘটনায় মা কারাগারে

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: খালের পাড়ে ‘নবজাতক’কে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় মা রিক্তা বেগম দোষ স্বীকার করেছেন। পরে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেছে।

শনিবার (২১ নভেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিলটন হোসেনের আদালতে হাজির করা হয়। সেখানে তিনি শিশুটিকে ফেলে দেওয়ার দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন।

আদালত পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান বলেন, জবানবন্দি দেওয়ার পর রিক্তা বেগমকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

অভিযুক্ত রিক্তা বেগম পোশাক শ্রমিক ছিলেন। বন্দরের ফরাজীকান্দার একটি বাড়িতে এলাকায় স্বামী লাল মিয়াকে নিয়ে ভাড়া থাকেন।

থানা-পুলিশ জানা যায়, ২০ নভেম্বর দুপুরে ফরাজীকান্দা এলাকায় খালের পাড়ে কান্নার শব্দ শুনে সজীব নামের একজন পথচারী এগিয়ে যান। সেখানে তিনি কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় একটি মেয়েশিশু দেখতে পান। শিশুটিকে উদ্ধার করে বন্দর থানায় নিয়ে যান সজীব। পুলিশ শিশুটির মা রিক্তা বেগম ও বাবা লালকে খুঁজে বের করে। অসুস্থ হয়ে পড়লে শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। রিক্তা ও লাল মিয়ার সংসারে আগে থেকে ৬ বছর বয়সী এক পুত্র সন্তানও রয়েছে।

এ ঘটনায় শিশুটির বাবা লাল মিয়া স্ত্রী রিক্তার বিরুদ্ধে নবজাতকে পরিত্যাগ আইনে একটি মামলা করেন। পুলিশ রাতেই রিক্তাকে গ্রেপ্তার করে। শনিবার আদালতে প্রেরণ করেন।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুদ্দীন ভূইয়া লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ২০ নভেম্বর লাল মিয়া কাজে যান। সকাল ১০টায় স্ত্রী রিক্তার ঘরে শিশুটি জন্ম হলে বাড়ির পাশের খালে ফেলে দেয় মা। বাড়িওয়ালা শিশুটিকে উদ্ধার করে বন্দর থানায় নিয়ে আসে। শিশুটির অবস্থা অসংঙ্কাজনক হওয়ায় আমরা তাৎক্ষনিক শিশুটিকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠাই। সেখানকার চিকিৎসক উন্নত্ব চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠাতে বলে। শিশুটিকে ঢাকায় নেয়ার পথে মারা যায়।

0