না.গঞ্জে মদ উদ্ধারের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে দুই কনটেইনার বিদেশি মদ উদ্ধাদের ঘটনায় মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরের ষোলঘর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম ও তার ছেলে মিজানুর রহমান আশিককে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. বশির উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ তাদেরকে আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন।

আদালতে আজ তাদের আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী ব্যারিস্টার মো. রুহুল কুদ্দুস কাজল। তার সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট সালেকুজ্জামান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সারওয়ার হোসেন বাপ্পী। আবেদনকারীর আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল আদেশের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন।

গত ২৪ জুলাই নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় এ বিষয়ে মামলা হয়। র‌্যাব-১১ এর উপ-পরিচালক মো. শাহাদাত হোসেন বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন- মো. নাজমুল মোল্লা (২৩), সাইফুল ইসলাম (৩৪), মো. আজিজুল ইসলাম (৫৭), মিজানুর রহমান আশিক (২৪), আব্দুল আহাদ (২২), জাফর আহমেদ (৩৫), শামীম (৩২), রায়হান (৩৫), দুবাই প্রবাসী অজ্ঞাত ব্যক্তি, দিপু (২৮) এবং বাদশা (৩২)।

এর আগে র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল সোনারগাঁয়ের টিপুরদী এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে দুটি কনটেইনার জব্দ করে। এ কনটেইনার দুটি থেকে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ৩৬ হাজার ৮১৬ বোতল বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার করা মদের মূল্য ৩১ কোটি ৫৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা। ভ্যাটসহ মূল্য দাঁড়ায় ৩৬ কোটি ৮৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা।

র‌্যাব জানায়, এ চক্রটি দেশে টিভি ও গাড়ির পার্টস ব্যবসার আড়ালে অবৈধ মাদকদ্রব্য বিপণন নেটওয়ার্ক তৈরি করে। অবৈধ মাদক বিদেশ থেকে আনার পরে মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর, রাজধানীর বংশাল ও ওয়ারীতে ওয়্যার হাউসে রাখতো। পরে সুবিধাজনক সময়ে এসব মাদক বিক্রি করতো। কখনো কখনো ট্রাক ও কনটেইনার থেকে সরাসরি ক্রেতাদের কাছে মাদক সরবরাহ করা হতো।