‘পুলিশ এদিক দিয়া আসলে হকার ঐদিক দিয়া দৌড় দেয়’

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, মনোনয়ন বৈধ ঘোষনা করার পর আমি যাদের নিয়ে সর্বপ্রথম আমার রাজনৈতিক কর্মকান্ড শুরু করেছি সেইসব রিক্সা চালক, হকার, কুলি-মজুরসহ সকল পেশার শ্রমিকদের সালাম জানাতে এসেছি। এসে দেখলাম এদিক দিয়ে পুলিশ আসলে হকার ওইদিক দিয়ে দৌড় দেয়, ওই দিক দিয়া আসলে এদিক দিয়া দৌড় দেয়। আমার মনে হলো নারায়ণগঞ্জে হকাররা চোর-পুলিশ খেলতাছে। তাই আমি এক পুলিশ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞেস করেছি এগুলো কেন, সে বললো নারায়ণগঞ্জে এখন তো চোর পুলিশ খেলা হচ্ছে।

সোমবার (২০ ডিসেম্বর) নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষনার পর সর্বপ্রথম চাষাড়ায় এসে শ্রমিক খেটে খাওয়া মানুষ ও হকারদের সাথে সৌজন্য স্বাক্ষঅত করেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বিএনপি নেতা তৈমূর আলম খন্দকার।

এসময় তিনি বলেন, আপনারা জানেন নির্বাচন কমিশন সকল যাচাই বাছাই করে আমার প্রার্থীতা বৈধ ঘোষনা করেছে। আসলে নারায়ণগঞ্জে চলছে আলাল দুলালের খেলা। এমপি ডানে গেলে মেয়র যায় বামে। জনগনের সমস্যা সমাধানের জন্য এ দুইজনকে বসতে হবে। কারো সাথে আমার রাজনৈতিক বিরোধ থাকতে পারে, কারো সাথে পেশাগত বিরোধ থাকতে পারে, কারো সাথে মনোমালিন্য থাকতে পারে, কিন্তু জনস্বার্থে কারো সাথে বসতে আমার আপত্তি নাই। এমপি দের সাথেও বসতে আপত্তি নাই, কাউন্সিলরদের সাথে বসতেও আমার আপত্তি নাই। হকার নারায়ণগঞ্জের জনগনের একটি অংশ। তাদেরও পেট আছে, তাদেরও ছেলে-মেয়েরা লেখাপড়া করে। তাই তাদেরও একটি আয়ের ব্যবস্থা করতে হবে, জোর কইরা তাদের বিদায় করা যাবে না। আর যাতে নারায়ণগঞ্জের মানুষরাও সুন্দর ভাবে চলাফেরা করতে পারে আলাপ আলোচনা করে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। আলাল দুলালের খেলা খেললে হবে না, খেলতে হবে জনস্বার্থে।

এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতা-কর্মীসহ সমর্থকরা।