ফতুল্লায় বিএনপি`র ৭১ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার ১

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লা মডেল থানায় বিএনপির ২১ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৫০ জনের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে মামলা করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) ফতুল্লা মডেল থানায় ওই মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই মামলায় ১নং আসামী ৩নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মাদবরকে আটক করা হয়েছে।

ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মফিজুল ইসলাম বাদী হয়ে এ বিস্ফোরক আইনে মামলাটি করেছেন। তথ্যটি লাইভ নারায়ণগঞ্জকে নিশ্চিত করেছেন ফতুল্লা মডেল থানার ইন্সপেক্টর (অফিসার ইনচার্জ) শেখ রিজাউল হক দিপু।

বিস্ফোরক আইনে মামলায় উল্লেখ করা হয়, বুধবার ৩০ নভেম্বর সন্ধ্যায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ফতুল্লার সস্তাপুরে বিএনপির ৭০ নেতাকর্মী সশস্ত্র অবস্থায় হাতে মশাল, লোহার রড, হকিস্টিক, চাপাতি, ককটেল নিয়ে পরিকল্পিতভাবে স্লোগান দিয়ে রাস্তা অবরোধ করে টায়ারে আগুন ধরায় ও ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় বেশ কয়েকটি গাড়িও ভাঙচুর করা হয়।

ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয় ৩ টুকরা লাল স্কচটেপ মোড়ানো বিস্ফোরিত ককটেলের অংশ, ৪টি লোহার রড, মশাল মিছিলে ব্যবহৃত ৮টি বাঁশের লাঠি, একটি মাঝারি আকারের পোড়া টায়ার ও ভাঙা কাঁচের অংশ।

মামলায় আসামিরা হলেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক লুৎফর রহমান খোকা, শহিদুল ইসলাম টিটু, ৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মাদবর, বিএনপি নেতা আলী আহমেদ ইঞ্জিনিয়ার, এনামুল হক মামুন, হান্নান মিয়া, ইসমাইল হোসেন, শহিদুল্লাহ, ইসমাইল হোসেন খান, জাহাঙ্গীর, আলমগীর, আমির হোসেন, মিঠু, রনি, শাহিন, জাকির হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, বিল্লাহ হোসেন, ইকবাল, জুয়েল আরমান, নয়নসহ অজ্ঞাত ৫০ জন।

উল্লেখ্য, ২১ নভেম্বর (সোমবার) রাতে ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহাদাত হোসেন বাদী হয়ে আরেকটি মামলা করেন। মামলায় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়কসহ দলটির ও এর সহযোগী সংগঠনের ৩৪ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরও ২৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে।