বন্দরে আ.লীগ নেতার পরিবারের উপর অতর্কিত হামলার ঘটনায় মামলা

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: সদ্যঘোষিত কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেনের পরিবারের উপর অতর্কিত হামলার ঘটনায় মামলা নিয়েছে পুলিশ।

নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক কুমার সাহা শনিবার (১৪ মে) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযুক্তরা হলেন- বন্দরের ফরাজীকান্দার মৃত রাইসুল ইসলামের ছেলে পারভেজ (৪৫) ও তানভীর (৩৮), নাছির উদ্দিনের ছেলে সুমন প্রধান (৪২) আহসান উল্লাহর ছিলে রানা (৪০), মুজাহিদের ছেলে রাজীব (২৯) তাওলাদ হোসেনের ছেলে নাহিদ (৩১)। এছাড়াও অজ্ঞাত আসামী রয়েছে ৮/১০ জন।

ভূক্তভোগী শাহাদাত হোসেনের চাচা এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সদ্যঘোষিত কমিটির স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হাই লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, ১২ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কলাগাছিয়া ইউনিয়নের ফরাজীকান্দা এলাকায় শাহাদাতের স্ত্রী স্বপ্না অসুস্থ ছেলেকে নিয়ে নারায়ণগঞ্জে হাসপাতালে যাবার পথে অভিযুক্তসহ অজ্ঞাত ৮/১০ জন উচ্ছৃঙ্খল যুবক গালিগালাজ করে। তিনি প্রতিবাদ করলে বিবাদীরা আরো ক্ষিপ্ত হয়। রক্ষণে শাহাদাত বিষয়টি অন্যজন মারফত জানতে পেরে বিবাদীদের সাথে এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে বিবাদীরা তার সাথেও খারাপ আচরণ করে। হট্টগোল শুনে শাহাদাতের চাচা আব্দুল আজিজ (৭০) এগিয়ে গেলে কিছু বুঝে উঠার আগেই ১নং বিবাদী পারভেজ তার হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে আব্দুল আজিজকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার মাথায় আঘাত করলে তিনি মারাত্মকভাবে রক্তাক্ত জখম হন। তার ডাকচিৎকারে তার পরিবারের সদস্যরা এগিয়ে গেলে তাদের উপরেও বিবাদীরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে অতর্কিত হামলা চালালে বেশ কয়েকজন আহত হন। পরে স্থানীয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। বেশ গুরুত্বর আহত বিধায় আব্দুল আজিজকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন নেতৃবৃন্দ জানান, ‘খন্দকার মুশতাকের প্রেতাত্মারা এখনো তৎপর আছে। তারা সুযোগ পেলে ছোবল মারবে। তারা আওয়ামী লীগের ক্ষতি করতে সদা ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তাদেরকে রুখে দিতে আমাদেরকে সর্বদা সোচ্চার থাকতে হবে। শাহাদাত প্রতিবাদী এবং অন্যায়ের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর বিধায় তাকে টার্গেট করা হয়েছে। শাহাদাত হোসেনের পরিবারের সদস্যদের উপর যারা হামলা চালিয়েছে তাদের প্রতি আমরা নিন্দা জানাচ্ছি। তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের নিকট জোড়ালো দাবী জানাচ্ছি’।

এদিকে, বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক কুমার সাহা জানান, অভিযোগটি আমলে নিয়ে মামলা গ্রহণ করা হয়েছে।