বন্দরে একটি মুরগির ৪টি পা, ভিড় জমাচ্ছে উৎসুক জনতা

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: সাধারণত মুরগির ২টি পা থাকে। কিন্তু নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় মিললো চার পা ওয়ালা মুরগি। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বাবুপাড়া এলাকায় পোলট্রি মুরগি ব্যবসায়ী মনির মিয়ার দোকানে দেখা মিললো বিড়ল এই মুরগির।

এদিকে, চার পা বিশিষ্টি মুরগির খবরটি মুহুর্তে ছড়িয়ে পরে ওই এলাকাসহ আশপাশের এলাকায়। বিড়ল এই মুরগি দেখা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে স্থানীয়দের মধ্যে। ইতিমধ্যে উৎসুক জনতা ওই দোকানে ভিড় জমাচ্ছেন।

জানা গেছে, মনির মিয়ার বাড়ি বন্দর রুপালী আবাসিক এলাকায়। বাবুপাড়া মোড়ে তার মুরগির দোকান রয়েছে। বৃহস্পতিবার তিনি খামারিদের কাছ থেকে শতাধিক ব্রয়লার মুরগি কিনে দোকানে তোলেন। শুক্রবার দোকানের খাঁচা থেকে মুরগি বিক্রির সময় তিনি একটি মুরগির চারটি পা দেখে ঘাবড়ে যান। পরে এক দোকান দুই দোকান ঘুরে বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে তোলপাড় শুরু হয়।

শুক্রবার সন্ধায় ওই দোকানে গিয়ে দেখা যায় ব্রয়লার প্রজাতির ওই মুরগির স্বাভাবিক দুটো পায়ের পাশ দিয়ে ছোট আকৃতির দুটো পা বের হয়েছে। ছোট্ট ওই পা দুটোর স্বাভাবিক পায়ের মতোই নখ রয়েছে। মুরগিটিকে এক নজর দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে লোকজনে ভিড় করছে। কেউ ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন মোবাইলে ছবি ও সেলফি তুলতে।

দোকানি মনির মিয়া জানান, অনেকদিন ধরেই মুরগির ব্যবসা করছি। কিন্তু কখনো চার পা বিশিষ্ট মুরগি চোখে পড়েনি। মুরগিটির কেনো চারটি পা হলো এটি আমার মাথায় আসছে না। তবে এই মুরগি দেখতে বাইরের লোকজনের ভিড় করায় বেচাকেনায় একটু সমস্যা হচ্ছে।

বন্দর উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডা. সরকার আশরাফুল ইসলাম জানান, জন্মগত ত্রুটির কারণে মুরগিটির চারটি পা হয়েছে। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। এই মুরগি খাওয়া যাবে, এটা খেলে কোনো সমস্যা হবে না। মুরগি ছাড়া মানুষ ও অন্যান্য প্রাণীর ক্ষেত্রেও জন্মগত ত্রুটির কারণে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়।