বন্দ‌রে মন্ত্রী ‘দুর্ভাগ্য ৫০ বছরেও মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি সংরক্ষন করতে পারি নাই’

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের বন্দর শীতলক্ষা নদীর পারে পরিত্যক্ত অবস্থায় পরে থাকা মুক্তিযুদ্ধ চলাকালিন এক জাহাজ পুনরুদ্ধার করতে পরিদর্শন করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ও নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালেদ মাহমুদ চৌধুরী।


বুধবার (৪ আগস্ট) বিকেলের দিকে তারা এ পরিদর্শনে আসেন। এ সময় জাতিয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানও উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শনকালে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের মহান স্বাধীনতার যুদ্ধে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কাছে যে সকল জাহাজ ছিলো, সেগুলো আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা এক দিনে ২৬টি জাহাজ ডুবিয়ে দিয়েছিলো। সেই স্মৃতিকে সংরক্ষন করার জন্য এমবি ইকরাম নামক জাহাজের ধ্বংসাবশেষ আমরা উদ্ধার করে সংরক্ষন করেছি। এবং এই অংশ গুলোকে আমরা এমন ভাবে সংরক্ষন করতে চাই যাতে আমাদের গৌরব গাথা এবং আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের সম্পর্কে পরবর্তি প্রজন্ম ও দেশি বিদেশি পর্যটকরাও যাতে জানতে পারে। তাই আমাদের একটি পরামর্শ কমিটির মাধ্যমে আমরা জানার চেষ্টা করছি যে কোন স্থানে এটি তৈরি করলে ভালো হবে এবং ভালো ভাবে সংরক্ষন করা যাবে। আজ আমরা এ জন্য মোট ৪টি জায়গা দেখেছি।

এ সময় নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালেদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আমাদের র্দুভাগ্য যে ৫০ বছরেও আমরা মুক্তি যোদ্ধাদের স্মতি সংরক্ষন করতে পারি নাই। আমাদের প্রধানমন্ত্রী ১২ বছর যাবত মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে নিরালস কাজ করে যাচ্ছে। তারই একটি অংশ যে এমবি ইকরাম আমরা খুজে পেয়েছি ও উদ্ধার করা হয়েছে। সেটিকে সংরক্ষন করে আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার লক্ষে আমরা দেখে গেলাম। রয়িং ডিজাইন যারা করে এবং পরামর্শ কমিটির সাথে কথা বলে তাদের প্রস্তাবনা অনুযায়ি এখানে এমন একটি মিউজিয়াম তৈরি করতে চাই, যেটা ১শত বছর পরেও মুক্তিযোদ্ধাদের কথা বলবে। আমরা আশা করি মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রনালয়ের নেতৃত্বে এরকম একটি গর্বের কাজ সমাপ্ত হবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সচিব খাজা মিয়া, নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ শামীম বেপারিসহ দুই মন্ত্রনালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তারা।

0