বয়ঃসন্ধিকালে পরিচর্চা পেলে কিশোর গ্যাং নয়, পরিনত হবে শক্তিতে

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বয়ঃসন্ধিকাল ছেলে ও মেয়ে উভয়ের শরীর ও মনে নানা ধরণের পরিবর্তন ঘটে। এ সময়ে দ্রুত বেড়ে উঠার সাথে সাথে তাদের চিন্তা চেতনায় দেখা দেয় ব্যাপক পরিবর্তন। শুধু মাত্র সঠিক দিক নির্দেশনা আর ছোট ছোট কিছু উদ্যোগের কারণে কিশোর বয়সেই ছেলে-মেয়েদের পরিচয়ই বদলে যায়। কেউ ঝড়িয়ে পড়েন কিশোর গ্যাংয়ের সাথে, কেউ কেউ আবার হন বিপথগামী। অবশেষে বয়ঃসন্ধিকালের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য রক্ষার দিক নজর দিয়েছে প্রশাসন।

নারায়য়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহর উদ্যোগে শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকালে বন্দর উপজেলার ১৭টি স্কুলে ‘এডোলেসেন্ট কাউন্সেলিং সেন্টার’ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

যেখান থেকে কিশোর বয়সে শিক্ষার্থীরা মাসিককালীন ব্যবস্থাপনার জন্য স্থাপনকৃত স্যানিটারি প্যাডসহ প্রাথমিক চিকিৎসা উপকরণ সংরক্ষণ, মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বয়:সন্ধিকালীন স্বাস্হ্য পরিচর্যা, ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতা, স্বাস্থভ্যাস, মহামারী (COVID-19)ও দূর্যোগ মোকাবেলা, নৈতিক শিক্ষা, ইভটিজিং, মাদক ও বাল্যবিবাহ রোধ এবং পুষ্টিকর খাদ্যাভ্যাস গড়ে তোলতে পারবে।

বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকারের সভাপতিত্বে এডোলেসেন্ট কাউন্সেলিং সেন্টারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসনের উপসচিব ফাতেমা তুল জান্নাত, বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা, মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এ বি সালাম।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, ‘আইনস্টাইন খুবই খারাপ ছাত্র ছিলেন, সে ছিলেন ব্যাকবেঞ্চার। কিন্তু আজ তার কর্মের কারণে গোটা বিশ্ব চিনে। নানা সমস্যায় থেকেও এপিজে আব্দুল কালাম স্কলারশীপ পেয়ে ছিলেন। তখন সে ভেবে ছিলো, সে এই টাকা দিয়ে পড়ালেখার পাশাপাশি মাছ মাংশ খাবো কিভাবে? টাকা বেশি খরচের ভয়ে ভেজিটেরিয়ান (খাদ্য তালিকায় মাংস পরিহার) হয়ে গিয়েছিলেন। একদিন ওনাকে অস্ত্র বহন করতে পারবে; এমন একটি প্লেনের নকশা তৈরি করতে বলা হলো। তিনি সময় চেয়ে ছিলেন ৩০ দিনের, কিন্তু ওনার যে বড় কর্মকর্তা ছিলো, সে ওনাকে মাত্র ৩ দিনের সময় দিলো। সেই বড় কর্মকর্তা আব্দুল কালামকে বলেছিলো ‘আই বিলিভ ইউ ক্যান’। এরকম ভাবেই আমি বন্দরের শিক্ষার্থীদের বলতে চাই ‘আই বিলিভ ইউ ক্যান’। আমি বিশ্বাস করি তোমরাও পাড়বে। বন্দরের ছেলে মেয়েরা নারায়ণগঞ্জকে এগিয়ে নিয়ে যাবে ‘

সভাপতির বক্তব্যে ইউএনও বলেন, ‘আমাদের জন্য লজ্জার বিষয় যে, আমাদের সন্তানেরা কিশোর গ্যং এ পরিনত হচ্ছে। কিন্তু এই বিষয় গুলো তুলে ধরলে কিশোর গ্যাং অনেকটাই কমে আসবে। জেলা প্রশাসক মহদোয় অতান্ত সুন্দর একটি কার্যক্রম শুরু করেছেন। এটিকে দেখে রাখার দায়িত্ব কিন্তু আপানদের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের। আমরা হয়তো একদিন এখানে থাকবো না, তবুও আপনাদের এই কার্যক্রমটা দেখে রাখতে হবে। আপনারা যদি এটাকে ধরে রাখতে পারেন, তাহলে ৫ বছরের মধ্যে পুরো বন্দরে পরিবর্তন আসবে আশা করছে।’

0