বিআইডব্লিউটিএ এর উচ্ছেদ অব্যাহত, আজও ভাংলো অর্ধশাতধিক স্থাপনা

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে দ্বিতীয় দিনের মতো অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) রূপগঞ্জ উপজেলায় নোয়াপাড়া এলাকায় কাঞ্চণ সেতুর পূর্বপাড়ে শীতলক্ষ্যা নদীতে অভিযান চালিয়ে প্রায় অর্ধশত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। সকাল হতে বিকেল পর্যন্ত অভিযান চালানো হয়।


এসময় একটি প্রতিষ্ঠানের বৈধ কাগজপত্র ও অনুমোদন না থাকায় দুই লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়।

জানা গেছে, শীতলক্ষ্যা নদীর সীমানা পিলারের অভ্যন্তরে এবং আইন অমান্য করে নদীর সীমানার দেড়শ’ ফুটের ভেতরে গড়ে উঠেছে শতাধিক প্রতিষ্ঠান। আর এইসকল প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ করতেই অভিযান শুরু করেছে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দর কতৃপক্ষ।

অভিযানে চারটি পাকা, ছয়টি আধাপাকা বসতবাড়ি ও মমিন টেক্সটাইল মিল নামের একটি বস্ত্র কারখানা সহ অর্ধশত অবৈধ স্থাপনা ভেঙে ফেলা হয়। একই সাথে বৈধ কাগজপত্র ও অনুমোদন না থাকায় মমিন টেক্সটাইলকে দুই লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযান প্রসঙ্গে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দরের যুগ্ম-পরিচালক মো. গুলজার আলী জানান, উচ্ছেদের পূর্বে অবৈধ দখলদারদের স্থাপনা ও মালামাল সরিয়ে নিতে নোটিশ দেয়া হয়েছিল। এরপরেও তারা সরিয়ে না নেয়ায় অবৈধ স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ করা হয়েছে।
তিনি জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশে জেলা প্রশাসন, ভূমি কতৃপক্ষ ও বিআইডব্লিউটিএ’র যৌথ সমন্বয়ে নদীর সীমানা সংক্রান্ত পুন.জরিপ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। সে আলোকে পুনরায় সীমানা পিলার স্থাপন করতে নদীর জায়গা দখলমুক্ত করা হচ্ছে। আজকের অভিযানে কোন প্রতিবন্ধকিতা সৃষ্টি হয়নি এবং জমির মালিকানাও কেউ দাবী করতেও আসেনি। নদীকে দখলমুক্ত করতে এ উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে গত দু’দিনে শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে বিআইডব্লিউটিএ কতৃপক্ষ।