বিধিনিষেধ শিথিলের শুরু‌তেই পরিবহন সংকট

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহাকে সামনে রেথে, নারায়নগঞ্জসহ সারাদেশে কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছে। প্রথমদিনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে গণপরিবহণ। খুলেছে প্রায় সবগুলো শপিংমল ও দোকানপাট। ত‌বে গণপরিবহন চালু থাকলেও যাত্রীবা‌হি বাস সংকটে ভুগছে সাধারণ যাত্রীরা। নিয়ম মেনে গাড়িতে উঠলেও, সঠিক সময়ে পরিবহন মিলছে না। পরিবহন শ্রমিকদের দাবী দীর্ঘদিন পর গণপরিবহন চালু করায় রাস্তায় দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে, যার ফলে গাড়ি আটকে পড়েছে, তাই সকাল থেকেই রয়েছে এ সংকট।


শহরে কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে সরেজমিনে দেখা যায়, নির্দিষ্ট কাউন্টার থেকে দীর্ঘ লম্বা সারি, বাসের অগ্রীম টিকিট সংগ্রহ করে লাইনে দাঁড়িয়ে উঠতে হচ্ছে বাসে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিয়ম মাফিক পরিবহনে উঠলেও, পরিবহন মিলছে অতিরিক্ত সময় পার করে। মন্ত্রণালয়ে প্রজ্ঞাপনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচলের নিয়ম বলে, একটি বাসে অল্প সংখ্যক যাত্রী নিয়েই রওনা হচ্ছে গন্তব্যস্থলে। এছাড়া রাস্তায় যানজট থাকার ফলে, বিলম্ব সময়ে গাড়ি ছাড়তে হচ্ছে। তাই অনেকটা ভোগান্তী পোহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষের।

প্রচন্ড গরমের মধ্যে কাধেঁ ব্যাগ নিয়ে হাতে প্লাষ্টিকের বস্তা নিয়ে দাড়িঁয়ে আছেন মেহেদী হাসান রাতুল। তিনি জানান, দেড় ঘন্টা যাবত টিকিট নিয়ে দাড়িঁয়ে আছেন , বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন, লাইনে দাঁড়ানো অবস্থায় ৩টি গাড়ি চলে যেতে দেখেছেন। কিন্তু একটি গাড়িতেও নিজের জায়গা করে নিতে পারেনি। কারণ অর্ধেক যাত্রী নিয়ে রওনা হচ্ছে গাড়ি। যাত্রীদের বাসে উঠার লাইন দীর্ঘ লম্বা হওয়ায়, গাড়িতে উঠায় মুশকিল হয়ে পরেছে।

কথা হয় অভি জাহিদের সাথে, তিনি বলেন, বরিশালে যাবো, ঈদের সময় পরিবারের সাথে না থাকলে অপরিপূর্ন থেকে যায় ঈদের আনন্দ। তাই যত কষ্ট হোক, ঈদ পরিবারের সাথেই করবো। সকাল থেকেই লাইনে দাঁড়িয়ে গাড়ির অপেক্ষা করছি। কিন্তু গাড়ির দেখা পাচ্ছি না। অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে টিকিট সংগ্রহ করতে হয়েছে, তাই যত কষ্টই হোক গ্রামের বাড়ি যাবোই।

পরিবহন শ্রমিক সুমন জানান, সকাল থেকেই যে গাড়ি গুলো ঢাকায় রওনা হচ্ছে এবং ঢাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ ফিরছে সবগুলো মাঝ পথে আটকে আছে। আজ অনেকদিন পর গণপরিবহন খুলে দেয়ায় মানুষ বাহির হচ্ছে ও পরিবহনের চাহিদাটা তুলনা মূলক বেশী বলা চলে। আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রীদের গাড়িতে উঠাচ্ছি এবং ২সিটে ১জন করে বসাচ্ছি। সরকারে নিয়মবিধি পালন করেই ৬০ ভাগ ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। কিন্তু আমরা গাড়ি নিয়ে শংকায় আছি কারণ যানজটের কারণে গাড়ি গুলো আটকে পরেছে। যার ফলে পরিবহন সংকটে পড়েছে সাধারণ যাত্রী।

0