বিভিন্ন দাবিতে দাবিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের মানববন্ধন ও মিছিল

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: জ্বালানি তেলের বর্ধিত মূল্য ও গণপরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহারের এবং ঢাকায় ছাত্র সমাবেশে হামলাকারী পুলিশের শাস্তির দাবিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার উদ্যোগে সোমবার (৮ আগস্ট) বিকাল ৪ টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও শহরে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি মুন্নী সরদারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলার সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রাতুল, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক নাছিমা সরদার, দপ্তর সম্পাদক শিহাব মৃধা।

নেতৃবৃন্দ বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে যখন জ্বালানি তেলের দাম কম থাকলেও সরকার রেকর্ড পরিমান তেলের দাম বৃদ্ধি করেছে। জ্বালানি তেলের মূল্য ৪২% থেকে ৫১% বৃদ্ধি করা হয়েছে। নিত্যপণ্যের উচ্চমূল্যের সময়ে জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি জনজীবনে ভয়াবহ বিপর্যয় নিয়ে আসবে। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি নিত্যপণ্যের মূল্য আরও অনেক বাড়িয়ে দেবে। বিপিসি গত ৮ বছরে ৪৮ হাজার কোটি টাকা লাভ করেছে। গত কিছুকাল তেলের দাম আন্তর্জাতিক বাজারে বেশি থাকায় সরকার লোকসানের কথা বলে এ দাম বৃদ্ধি করল। আইএমএফ-এর শর্তপূরণের জন্যই এক লাফে এ মূল্য বৃদ্ধি করা হল। জ্বালানি তেলের ব্যাপক মূল্য বৃদ্ধি তাদের জীবন দুর্বিষহ করে তুলবে।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির সাথে সাথে শুরু হয় পরিবহনের নৈরাজ্য। বিভিন্ন রুটগুলিতে বাস মালিকরা স্বেচ্ছাচারীভাবে অনেক বেশি পরিমাণে ভাড়া আদায় করছে। ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে গতকাল মালিকরা ৪৫ টাকার ভাড়া ৪৪.৪৪% বাড়িয়ে ৬৫ টাকা আদায় করেছে। আজ তারা ৬০ টাকা আদায় করছে। ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ১৮.৫ কিলোমিটারের রাস্তায় সরকার ঘোষিত ভাড়া ৫০ টাকার অধিক হতে পারে না। গতকাল ঢাকা, লক্ষীপুর, বরিশালসহ অনেকগুলো জেলায় জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশি ও সরকার দলীয় গুন্ডাবাহিনী হামলা চালিয়েছে। দমন পীড়নের পথে সরকার জনগণের ন্যায় সঙ্গত আন্দোলন বন্ধ করতে চায়। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে জ্বালানি তেলের ও পরিবহনের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার এবং সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচিতেহামলাকারী পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের শাস্তি দাবি করেন।