শহরের দুর্ভোগের মূলে সমন্বয়হীনতা, ‘ব্যর্থতা মেয়রের’

0

গোলাম রাব্বি, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নগরীর সড়ক জুড়ে হকার; উচ্ছেদে বহুবার উদ্যোগ নিয়েছে পুলিশ, চেষ্টা করেছেন সিটি করপোরেশনও। জেলা প্রশাসন থেকেও পাশে থাকার কথা বলা হচ্ছে। আর একত্রে বসার কথা বলছেন স্থানীয় সংসদ সদস্যও। জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, সিটি করপোরেশন আর জনপ্রতিনিধি, সকলেই চেয়েছেন হকার উচ্ছেদ। তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে, কোথায় বাঁধা?

এ প্রশ্নের উত্তরে আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর শীর্ষ এক নেতা দাবী করেছেন, ‘বাঁধা ইগোতে। জনপ্রতিনিধিদের ইগোর কারণে সমন্বয়হীনতা; আর তাই হাঁটা-চলার অধিকার হারাচ্ছে নগরবাসী’।

মাঝে মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলার এমপিরা আইন-শৃঙ্খলা মিটিংয়ে উপস্থিত থাকলেও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়রকে কখনই দেখা যায় না। সর্বশেষ আইন-শৃঙ্খলা মিটিংয়েও উপস্থিত ছিল না কোন এমপি ও মেয়র। সভায় হকার ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে ঠিকই, কিন্তু জেলা প্রশাসক আর পুলিশ সুপার কোন সিদ্ধান্তে পৌছাতে পারেনি। তারা আক্ষেপ করে বলেছেন, সমাধানে সম্মিলিত উদ্যোগের অভাব।

এ ব্যাপারে আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন মন্টু বলেন, ‘উন্নয়ন একটি চলমান প্রক্রিয়া । কিছু কিছু ক্ষেত্রে সম্মিলত উদ্যোগের ছাড়া উন্নয়ণ হয় না। আমরা কিছু দিন পূর্বে শহরের মধ্যে নতুন করে রাস্তা নির্মাণ, হকার সমস্যাসহ বিভিন্ন দাবী নিয়ে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি ও সিটি মেয়রের কাছে গিয়ে ছিলাম। এ সময় সমন্বয়হীনতার ব্যাপারটি স্পষ্ট হতেই এমপি সেলিম ওসমান মেয়রকে আমাদের সামনেই ফোন দিয়ে একসাথে বসতে চেয়েছিলেন। পরে আবার মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর সাথে আমরা বসার ব্যাপারটি নিয়ে কথা বলতেই তিনি বলেছেন ‘আমরা দু’জনই বসলে তো আর সমাধান হবে না, এখানে ডিসি-এসপিকেও প্রয়োজন’।

এদিকে, ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত আইন-শৃঙ্খলনা মিটিয়ে জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন বলেছেন, ‘সম্মিলত উদ্যোগ নিলে কোন সমস্যায়ই থাকবে না। আপনার সবাইকে নিয়ে বসার ব্যবস্থা করুন। আমাদের দাওয়াত না করলেও সেই সভায় গিয়ে আমরা উপস্থিত হবো।’

নাগরিক সমাজের নেতা নাছির উদ্দিন মন্টুর দাবী, ইগোর কারণে এখনও সমন্বয়ের ব্যাপারটি ঝুলে আছে। এর আগে মেয়র ফুটপাত উচ্ছেদের চেষ্টা করলেও একটি মহলের জন্য পারেনি। তবে, সব কিছুর পরেও মানুষ কিন্তু বলবে- ‘ব্যর্থতাটি মেয়রেরই’।

0