সদর উপজেলায় ১৯ লাখে ১৩টি হাটের ইজারা

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় এবার মোট ১৯ লাখ ১৬ হাজার ৩৮৭ টাকায় ১৩টি অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারা সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) বিকেলে উপজেলা সম্মেলন কক্ষে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফা জহুরা আনুষ্ঠানিকভাবে দরপত্র উন্মুক্ত করেন।

এ বছর ১৪টি হাটের বিপরীতে ২২২টি দরপত্র ক্রয় করা হয়েছে। তবে জমা পড়েছে ৪৩টি। এর মধ্যে কুতুবপুর ইউনিয়নের আলীগঞ্জ পিডব্লিউডি মাঠের হাটটি বিবেচনাধীন রেখে ১৩টি হাটের ইজারাদারের নাম ঘোষণা করেন ইউএনও আরিফা জহুরা।

৪ লাখ ২০ হাজার ৫০১ টাকার বিনিময়ে গোগনগর ইউনিয়নের পলি ফ্যাক্টরি সংলগ্ন আলী আকবর বেপারীর ভূমিতে অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারা পেয়েছেন সোয়াদ হাসান বান্টি। যার সরকারি মূল্য ছিল ৪৭ হাজার ৭০০ টাকা। ৫ লাখ ৭ হাজার ৭৮৬ টাকার বিনিময়ে পুরান সৈয়দপুর কয়লাঘাট হাটের ইজারা পেয়েছেন রাইসুল কবির স্বপন। যার সরকারি মূল্য ছিল ১ লাখ ২৫ হাজার ৮০ টাকা। ৭২ হাজার ২০০ টাকার বিনিময়ে চর সৈয়দপুর শান্ত ফিলিং স্টেশন হাটের ইজারা পেয়েছেন মেহেদী হাসান দেলোয়ার। যার সরকারি মূল্য ছিল ৭১ হাজার ১২৭ টাকা।

১ লাখ ২০ হাজার ৯০০ টাকার বিনিময়ে বাড়িরটেক মাদবর বাড়ির পশ্চিমপাড়ের হাটের ইজারা পেয়েছন মো. দেলোয়ার হোসেন। যার সরকারি মূল্য ছিল ৭৪ হাজার ২০০ টাকা। ৪৫ হাজার টাকার বিনিময়ে বাদশা মিয়ার নিজস্ব ভূমিতে অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারা পেয়েছেন সাইদুর রহমান শাকিল। যার সরকারি মূল্য ছিল ৪৩ হাজার ৪৬০ টাকা। ৬৭ হাজার টাকার বিনিময়ে সৈয়দপুর পাঠাননগর হাটের ইজারা পেয়েছেন শাকিল মিয়া। যার সরকারি মূল্য ছিল ৬৫ হাজার ১৯০ টাকা।

৪৫ হাজার টাকার বিনিময়ে কাশীপুর ইউনিয়ন ক্লাব মাঠ হাটের ইজারা পেয়েছেন ইউপি সদস্য আইয়ূব আলী । যার সরকারি মূল্য ছিল ৪২ হাজার ৪০০ টাকা। ৭৬ হাজার ৫০০ টাকার বিনিময়ে কুতুবপুর ইউনিয়নের শান্তিধারা এলাকার বেপারী মার্কেট সংলগ্ন হাটের ইজারা পেয়েছেন আব্দুর রাজ্জাক বেপারী। যার সরকারি মূল্য ছিল ৭৫ হাজার ৭৯০ টাকা। ৩ লাখ ১০ হাজার টাকার বিনিময়ে পাগলা তালতলা প্যারাডাইজ সিটি মাঠ হাটের ইজারা পেয়েছেন মো. মেহেদী হাসান। যার সরকারি মূল্য ছিল ২ লাখ ২২ হাজার ৬০০ টাকা।

৭০ হাজার ৫০০ টাকার বিনিময়ে ভূইগড় সোনালী সংসদ মাঠে অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারা পেয়েছেন কেএম হুমায়ুন কবির। যার সরকারি মূল্য ছিল ৭০ হাজার টাকা। ৯১ হাজার টাকার বিনিময়ে ফতুল্লা স্টেডিয়াম লিংক রোডের পূর্ব পাশের হাটের ইজারা পেয়েছেন মনির হোসেন বাবুল। যার সরকারি মূল্য ছিল ৯০ হাজার টাকা। ৬০ হাজার টাকার বিনিময়ে বক্তাবলী ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামের হাটের ইজারা পেয়েছেন সাব্বির আহমেদ হৃদয়। যার সরকারি মূল্য ছিল ৫৯ হাজার ৩৬০ টাকা। ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে আলীরটেক ইউনিয়নের আমান মার্কেট সংলগ্ন হাটের ইজারা পেয়েছেন আমির হোসেন। যার সরকারি মূল্য ছিল ২৬ হাজার ৫০০ টাকা।

0