হাজিরা দিতে না.গঞ্জ আদালতে নূর হোসেনসহ ৩ জন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নূর হোসেনসহ তার তিন সহযোগীকে কড়া নিরাপত্তায় মাদক মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে তোলা হয়েছে

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমানের আদালতে এই হাজিরা প্রদান করেন তারা।

সাত খুনে সাজাপ্রাপ্ত অপর তিন সহযোগী হলেন- সেলিম, জামাল উদ্দিন ও আলী মোহাম্মদ। এ মামলায় জামিনে থাকা মাসুদ রানা ও জাহাঙ্গীর আলী রিপন স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে হাজিরা দিয়েছেন। সেইসঙ্গে আইনজীবীর মাধ্যমে টাইম পিটিশন চেয়েছেন নূর উদ্দিন ও শাহ জালাল বাদল। তারা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এছাড়া এই মামলায় এখনও পলাতক রয়েছেন শাহ জাহান ও সালাউদ্দিন। হাজিরা শেষে নূর হোসেনকে আবার কাশিমপুর কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান জানান, ২০১৪ সালের ২৯ মে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ শিমরাইল টেকপাড়া ট্রাক মালিক সমিতির পিছনে অভিযান চালিয়ে ২৯৭৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে। এ ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার তৎকালীন এসআই শওকত হোসেন বাদী হয়ে নূর হোসেনসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মাদক আইনে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ মামলায় নুর হোসেনসহ চার জনকে কাশিমপুর কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। হাজিরা শেষে আদালত আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী তারিখ ধার্য করেছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ফতুল্লার লামাপাড়া এলাকা থেকে নাসিকের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামসহ সাত জনকে অপহরণের তিনদিন পর তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম ও তার চার সহকর্মী হত্যার ঘটনায় তার স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি বাদী হয়ে ফতুল্লা থানায় একটি এবং সিনিয়র আইনজীবী চন্দন সরকার ও তার গাড়ির চালক ইব্রাহিম হত্যার ঘটনায় জামাতা বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে একই থানায় আরেকটি মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালত নূর হোসেন ও র্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তাসহ ২৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেন।