হেফাজতের তাণ্ডব: জনপ্রতিনিধি, বিএনপি-জামাত, জাপার ১০৩ জন গ্রেপ্তার

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: হেফাজতের ডাকা হরতাল ও সোনারগাঁয়ে রিসোর্টে মামুনুল হককে নারীসহ ঘেরাওয়ের ঘটনার পর হেফাজতের সহিংসতা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১০৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এতের মধ্যে হেফাজতে ইসলাম, বিএনপি-জামাত, জাতীয়পার্টির নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধি রয়েছেন।

গত ২২ দিনে নারায়ণগঞ্জের সদর, সিদ্ধিরগঞ্জ, সোনারগাঁ ও রূপগঞ্জ উপজেলায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গত ২৮ মার্চের হেফাজতের ডাকা হরতালে সিদ্ধিরগঞ্জে ৮টি ও রূপগঞ্জে ১টি মামলা দায়ের করা হয়। ৩ এপ্রিল হেফাজতের নেতা মামুনুল হককে এক নারীসহ ঘেরাও এরপর সহিংসতার ঘটনা সোনারগাঁ থানায় আরও ৭টি মামলা দায়ের হয়েছে। মোট ১৬ মামলায় ৫৮৯ জনের নাম উল্লেখ করে ৪৪০০ জনকে আসামী করা হয়েছে। এদের মধ্যে সিদ্ধিরগঞ্জে ৩৫ জন ও সোনারগাঁয়ে ৬৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে হেফাজতের ডাকা হরতাল ও মাওলানা মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করে রাখায় হামলা, ভাঙচুর, আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধের ঘটনায় মোট ১০৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা

জনপ্রতনিধিদের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. ইকবাল হোসেন, সোনারগাঁ উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সভাপতি আব্দুর রউফ ও সোনারগাঁ পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফারুক তপন গ্রেপ্তার হয়েছে। ইকবাল হোসেন বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত। এছাড়া আব্দুর রউফ ও ফারুক তপন পূর্বে বিএনপি করলেও এখন সোনারগাঁ জাতীয়পার্টির রাজনীতি করেন।

পাশাপাশি হেফাজতে ইসলামের নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক মুফতি বশির উল্লাহ, নারায়ণগঞ্জ মহানগর জামায়াতের আমির মাওলানা মাঈনুদ্দিন আহমেদ, রূপগঞ্জ উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন দেলু, ভুলতা ইউনিয়নের মতুর্জাবাদ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা লোকমান হোসেন, হেফাজত নেতা শাজাহান শিবলী, হাফেজ মোয়াজ্জেম হোসেন, হাফেজ মাওলানা মহিউদ্দিন খান, হেফাজতে ইসলামের নেতা খালেদ সাইফুল্লাহ সাইফকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এছাড়াও বিএনপি নেতা মোফাজ্জল হোসেন আনোয়ার, মো. মামুন মিয়া, ফারুক হোসেন ও নুর উদ্দীন, হেফাজতে ইসলামের কর্মী কাজি সমির, তাবলীগ জামাতের সদস্য অহিদ, হেফাজত কর্মীর মো. রাশেদুজ্জামান ওরফে মুন্না, সনমান্দী ইউনিয়নের কাটাখালী এলাকার আবু জাহেরের ছেলে হাসান মিয়া ও বাগেরহাট সদর উপজেলার মান্দ্রা এলাকার রজব আলী মোল্লার ছেলে শহিদুল ইসলামকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

0