৮নং ওয়ার্ডের সুবিধা বঞ্চিত জনগনের দাবী ‘পরিবর্তন চাই’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: দীর্ঘদিন ধরে অনেকটা থমকে আছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৮নং ওয়ার্ডের উন্নয়ন। এর-ই মধ্যে চলে এসেছে সিটি নির্বাচন। তবে এবার নিজ এলাকার উন্নয়নকে এভাবে থমকে থাকতে দেখতে চান না ৮নং ওয়ার্ডের জনগন। শুধু উন্নয়ন! অপশক্তির জবর-দখল, মাদকের ভয়াবহতায় শঙ্কিত অভিভাবকরা। তাই এ এলাকায় রব উঠেছে,  দাবী একটাই ‘পরিবর্তন চাই’।


জানা গেছে, ৮নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর রুহুল আমিন। ২০১৬ সালে মানুষকে বিভিন্ন উন্নয়নের আশা দেখিয়ে পেয়েছিলেন বিপুল ভোট। তবে পরবর্তিতে সেই ভোট জয় লাভ করে পুরণ করতে পারেননি সেই সকল আশা। বিপরিতে নানা অপকর্মে, অপরাধে নিজের নাম জড়িয়ে ফেলেছেন। অভিযোগ বিস্তর। নিরব ক্ষোভে ফুসঁসে জনতা। এমনটাই জানাচ্ছেন এবারের ভোটাররা।

বিকল্প চিন্তায় , ভোটারদের বিকল্প পছন্দ মহসিন ভুইয়া। তাই এবার জনগনের চোখে দেখা দিয়েছে নতুন আশার আলো। জনগন নিজ থেকে বেঁছে নিয়েছে তাদের পছন্দের প্রার্থী। প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তার কারনে ভোট কেন্দ্র সুন্দর ভাবে গিয়ে নিজের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবে বলে আশা করছে ওই এলাকার ভোটাররা।

এবার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে অংশগ্রহন করেছেন ৮জন। তারা হলেন- মো. রুহুল আমিন, মো. মহসিন ভূইয়া, মো. সোহেল রানা, মেহেবুব হাসান ফারুকী, সালাহ উদ্দিন আহম্মেদ, তারক নাথ সাহা, মো. সাগর প্রধান ও দেলোয়ার হোসেন খোকন।

পুরাতনের উপর থেকে বিশ্বাস উঠে যাওয়ায় নতুন কাউকেই বেছে নিবেন বলে জানিয়েছেন অনেকেই। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই ওয়ার্ডের একাধীক স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আগের কাউন্সিলর (মো. রুহুল আমিন) এই ওয়ার্ডের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের আশ্বাস একাধীকবার দিলেও তা পুরণ করেনি। রাস্তাঘাট মেরামত ছাড়া জনগনের আরো কিছু চাহিদা থাকে, কেননা সিটি এলাকায় আমরা সকলেই অধিক ট্যাক্স প্রদান করে থাকি। তবে ট্যাক্স অনুযায়ী উন্নয়ন না পেলে কার ভালো লাগে? তাই এবার ভেবেছি নতুন এবং জনতার কাছের আপন কাউকে এবার নির্বাচিত করবো।

আরেকজন জানান, আমরা গরিব মানুষ, বিভিন্ন সময় সমস্যায় পরে তার (মো. রুহুল আমিন) কাছে যাওয়া লাগে, তবে গিয়ে তারে পাই না। মাঝে মাঝে কথা বলতে পারলেও আশ্বাস পর্যন্তই সীমাবদ্ধ থাকে সেই সকল বিষয়। আমরা চাই নতুন কাউকে। যে শুধু আশ্বাস দিবে না, কাজও করে দেখাবে।

এ দিকে নির্বাচনের একদিন আগে সারেজমিনে ওয়ার্ডটি পরিদর্শন করে দেখা গেলো ওয়ার্ডটিতে জনপ্রিয়তার মধ্যে শীর্ষে রয়েছেন মো. মহসিন ভূইয়া। এই কারনে অনেকে তাকে পথের কাটা বলেও মনে করছেন।  তাই তাকে নিয়ে যেন কোন ষড়যন্ত্র  করতে না পারে, এ জন্য এবার প্রশাসন থাকবে তাদের কঠোর অবস্থানে। মহসিন ভুইয়ার পক্ষে যে গণজোয়ার সৃস্টি হয়েছে, এ এলাকার অতিতের কোন নির্বাচনের কোন প্রার্থীর পক্ষেই এমনটা দেখা যায়নি বলে প্রবীন ভোটারা জানান।

সব মিলিয়ে জমজমাট পরিবেশে ৮নং ওয়ার্ডে চলছে নির্বাচনি উষ্ণতা। জনগনও তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে তাদের উন্নয়ন নিশ্চিত করতে পারবে বলে খুশি তারাও। তবে সব জল্পনা-কল্পনার শেষ হবে আগামী ১৬ই জানুয়ারি এনসিসি নির্বাচনের ভোট প্রদানের মধ্য দিয়ে।